Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১ মার্চ, ২০১৭ ০২:২৯
কুমিল্লায় দুই দলেই গ্রুপিং
বিএনপিতে আগে সমস্যা ছিল এখন নেই : সাক্কু
কুমিল্লা প্রতিনিধি
বিএনপিতে আগে সমস্যা ছিল এখন নেই : সাক্কু

বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন সদ্য বিদায়ী মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। মনোনয়ন পেয়ে কুমিল্লায় ফিরে সাংবাদিকদের কাছে তিনি প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘কুমিল্লা বিএনপিতে অতীতে গ্রুপিং থাকলেও এখন তা নেই। বেগম জিয়া সে গ্রুপিং মিটিয়ে দিয়েছেন। আমি আর ইয়াছিন সাহেব (কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিন-উর রশিদ ইয়াছিন) একসঙ্গে গিয়ে মনোনয়ন এনেছি। কুমিল্লা বিএনপি এখন ঐক্যবদ্ধ। আমরা সব সময় একসঙ্গে থাকব। ’ গতকাল দুপুরে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মনিরুল  হক সাক্কু। কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক সাক্কু আরও বলেন, ‘বিগত বছর বিএনপি কুসিক নির্বাচনে আসেনি বিধায় দল থেকে অব্যাহতি নিয়ে নির্বাচন করেছি। কারণ জনগণের সঙ্গে আমাকে থাকতে হবে। এবার দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। তাই আমি দলের প্রতি কৃতজ্ঞ। ’ প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আঞ্জুম সুলতানা সীমা সম্পর্কে সাক্কু বলেন, ‘তাকে আমি ছোট বোনের মতো দেখি। তিনি আমার পরিষদে কাউন্সিলর ছিলেন। সীমা সিটি করপোরেশনে কম আসতেন। তবে মিটিংয়ে আসতেন। তিনি ভদ্র মেয়ে। কেউ আমার বিরুদ্ধে বললেও আমি তার বিরুদ্ধে কিছু বলব না। তার দল তাকে মনোনয়ন দিয়েছে। তিনি পাস করতে চাইবেন। আমিও পাস করতে চাইব। ’ স্থানীয় আওয়ামী লীগ এমপি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক আছে উল্লেখ করে সাক্কু বলেন, ‘এমপি সাহেব একটি দল করেন। আমি আরেকটি দল করি। শুধু সিটির উন্নয়নের স্বার্থে তার সঙ্গে মিলেছি। কারণ তিনি মন্ত্রণালয়ে গিয়ে অভিযোগ দিলে আমার কাজ আটকে যাবে। আমি মেয়র তো হয়েছি নগরের উন্নয়ন করার জন্য। ’ ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি কুসিকের প্রথম নির্বাচনে মনিরুল হক সাক্কু স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন। উল্লেখ্য, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিন-উর রশিদ ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক সাক্কুর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে গ্রুপিং চলে আসছে।

২২১ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ : কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে গতকাল পর্যন্ত ২২১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। ২৩ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৫টা পর্যন্ত ছয় দিনে চার মেয়র প্রার্থী, মহিলা সংরক্ষিত আসনের ৩৭ প্রার্থী এবং সাধারণ আসন থেকে ১৮০ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন আওয়ামী লীগের আঞ্জুম সুলতানা সীমা, বিএনপির মনিরুল হক সাক্কু, জাসদের শিরিন আক্তার ও স্বতন্ত্র মো. শাহজাহান। এদিকে সাধারণ ওয়ার্ডে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার রকিব উদ্দিন মণ্ডল বলেন, ‘কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এখন পর্যন্ত ২২১ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। আমরা সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সব ধরনের প্রস্তুতি হাতে নিয়েছি। আচরণবিধি কেউ লঙ্ঘন করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ’

উল্লেখ্য, ৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমাদানের শেষ তারিখ ২ মার্চ এবং প্রত্যাহারের তারিখ ১৪ মার্চ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow