Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৪৫
স্কুলের গলিতে ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে আবারও বন্ধুর ছুরিকাঘাতে মোহাম্মদ সজীব (১৬) নামে এক স্কুলছাত্র খুন হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে মিরপুরের পশ্চিম শেওড়াপাড়া ১৭৮/এ নম্বর বাড়ির কাছে এ ঘটনা ঘটে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ভূইয়া মাহবুব হাসান জানান, প্রেম ঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে সজীবকে হত্যা করেছে তারই বন্ধু রুবেল ও সৌরভ। রুবেলকে গ্রেফতার করা হলেও সৌরভ পলাতক রয়েছে। তাকে ধরতে অভিযান    চলছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল হত্যার দায় স্বীকার করেছে। জানা গেছে, সজীব হলি ক্রিসেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৯ম শ্রেণির ছাত্র। বাবার নাম আবদুর রশিদ। তাদের গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ সদরের দরবারপুরে। দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে সজীব ছোট। বড় ভাই রাজু জানান, ২-৩ মাস বয়সে তার মা মারা যান।

পরে বাবা আরেকটি বিয়ে করেন। এরপর থেকে সজীব ১৭৮/১ পশ্চিম শেওড়াপাড়ায় বোনের বাসায় থেকে পড়ালেখা করত। ৩-৪ দিন আগ থেকে সজীবের বন্ধু আল-আমিনকে পরপর তিনবার মারধর করে তাদের বন্ধু সৌরভ। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝামেলা চলছিল। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সজীব ও আল-আমিন ওই স্কুল গলির দোকানে যায়। এ সময় সেখানে সৌরভ আসে। এ সময় দুজনের মাঝে কিছুক্ষণ কথা কাটাকাটি হয়। এ অবস্থায় সেখানে উপস্থিত হয় সজীব ও সৌরভেরই বন্ধু রুবেল ও আরেকজন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সজীব সৌরভকে থাপ্পড় দেয়। তত্ক্ষণাৎ রুবেলসহ আরেকজন সজীবকে জাপটে ধরে রাখে। তখন সৌরভ তার কোমরে লুকিয়ে রাখা চাপাতি দিয়ে সজীবের ডান ঘাড়ে ও পিঠে দুটি কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। আল-আমিন ও আশপাশের লোকজন রুবেলকে ধরে ফেলে। বাসায় খবর দিলে দুলাভাই আল-মাহমুদ বাবু সজীবকে উদ্ধার করে প্রথমে এক্সিম হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে নেওয়া হয় সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে। কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে রাত দেড়টার দিকে তাকে ঢামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সকালে সজীব মারা যায়। সজীবের বন্ধু আল-আমিন জানায়, ঘটনার সঙ্গে জড়িত সৌরভ একটি ইলেট্রিকের দোকানে কাজ করে। আর রুবেল গার্মেন্ট শ্রমিক। এ ঘটনায় জড়িত আরেকজনকে সে চেনে না। লাশ উদ্ধার : গতকাল সকালে বোটানিক্যাল গার্ডেনের হিজল গাছ থেকে ফাঁস নেওয়া অবস্থায় আকাশ (২০) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার বাবার নাম আনোয়ার হোসেন। আকাশ পরিবারের সঙ্গে পল্টনের ডিডব্লিউডি স্টাফ কোয়ার্টারে থাকত। তার গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের ডোমরাকান্দি। শাহআলী থানা পুলিশ বলছে, মঙ্গলবার বিকালে আকাশ বাসা থেকে বের হয়েছিল।

up-arrow