Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ মার্চ, ২০১৭ ২২:৫৫
প্রকৃতি
বিলুপ্তপ্রায় কচ্ছপ বাটাগুর বাসকা
বাগেরহাট প্রতিনিধি
বিলুপ্তপ্রায় কচ্ছপ বাটাগুর বাসকা

পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে বিশ্বে ‘বিলুপ্তপ্রায়’ প্রজাতির কচ্ছপ বাটাগুর বাসকার এখন সংরক্ষণ ও প্রজননের মাধ্যমে বংশ বিস্তারের   উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই প্রজনন কেন্দ্রে কচ্ছপ বাটাগুর বাসকার বেড়ে ওঠা, প্রজনন এবং ডিম পাড়ার জন্য ইতিমধ্যেই খনন করা হয়েছে একাধিক পুকুর, নালা, শেডসহ প্যান (কৃত্রিম পুকুর) ও ডিমপাড়ার স্থান।

বর্তমানে  প্রজনন কেন্দ্রে ১১৭টি কিশোর ও ১০টি বড় বাটাগুর বাসকা কচ্ছপ রয়েছে। এর মধ্য থেকে বড় দুটি বাটাগুর বাসকা কচ্ছপের পিঠে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসিয়ে রবিবার ভাটার সময় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে সুন্দরবনের বঙ্গোপসাগর মোহনায়। স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে এখন সুদূর অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় বসে এই কচ্ছপের জীবনাচরণের তথ্য ও ছবি স্পষ্ট দেখা যাবে। এক বছর ধরে কচ্ছপটির গতিবিধি পর্যালোচনা করা হবে। পর্যলোচনা ও গবেষণা শেষে সুন্দরবন এবং বঙ্গোপসাগরে এ প্রজাতির কচ্ছপের আরও বাচ্চা অবমুক্ত করা হবে। করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তৌহিদুর রহমান জানান, বাংলাদেশের বন বিভাগ, আমেরিকার টারটেল সারভাইভাল এলায়েন্স, অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা জু ও প্রকৃতি জীবন ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের কুমির ও হরিণের পাশাপাশি ২০১৪ সালে গড়ে তোলা হয় কচ্ছপ প্রজনন কেন্দ্র। বাটাগুর বাসকা কচ্ছপ প্রজননের আগে শুধুমাত্র সুন্দরবনসহ বাংলাদেশ ও ভারতে ছিল ১০০টির মতো। ৩ বছরে করমজলে প্রজননের মাধ্যমে এর সংখ্যা এসে দাঁড়ায় ১২৭টিতে। এদিকে ৮টি কচ্ছপ চলতি বছরের মাঝামাঝি ডিম দেবে। এরপর ডিম থেকে বের হওয়া বাচ্চাগুলো প্রাপ্ত বয়স্ক হলে সুন্দরবন ও বঙ্গোপসাগরে অবমুক্ত করা হবে। বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ ঢাকা অঞ্চলের বন সংরক্ষক জাহিদুল কবির বলেন, বিলুপ্ত প্রায় এ প্রাণীকে আমাদের রক্ষা করতে হবে। এ জন্যই মূলত এ আয়োজন কিংবা উদ্যোগ। দুটি কচ্ছপের পিঠে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে। এখন সুদূর অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় বসে এই কচ্ছপের জীবনাচরণের তথ্য এবং ছবি স্পষ্ট দেখা যাবে ও মনিটর করা হবে। সুন্দরবনে জালে যদি কখনো এ কচ্ছপ দুইটি আটকা পড়ে তাহলে যেন জাল থেকে অবমুক্ত করে দেওয়া হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow