Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০২
কার্যালয় সরাতে ছয় মাস সময় পেল বিজিএমইএ
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর হাতিরঝিল প্রকল্প এলাকা থেকে কার্যালয় সরাতে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতিকে (বিজিএমইএ) ছয় মাস সময় দিয়েছে আদালত। বিজিএমইএর সময় আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের তিন বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

আদালতে বিজিএমইএর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী কামরুল হক সিদ্দিকী ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল  মাহবুবে আলম। ৫ মার্চ আপিল বিভাগ ভবন রক্ষায় বিজিএমইএর রিভিউ আবেদন খারিজ করে। এর ফলে বেগুনবাড়ী খালের ওপর বেআইনিভাবে নির্মিত বিজিএমইএর ১৬ তলা ভবনটি ভাঙার ক্ষেত্রে আইনগত বাধা দূর হয়। তবে কার্যালয় সরাতে কত দিন সময় লাগবে সে বিষয়ে ৯ মার্চের মধ্যে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে আদালতে জানাতে বলা হয়। সেই অনুযায়ী ৮ মার্চ বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ আদালতে তিন বছরের সময়ের আবেদন করে। গতকাল সেই আবেদনের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় দুই দশক আগে রাজধানীর বেগুনবাড়ী খালের ওপর নির্মাণ করা হয় ১৬ তলাবিশিষ্ট বিজিএমইএ ভবন। জমির স্বত্ব না থাকা এবং জলাধার আইন লঙ্ঘন করে রাজধানীর হাতিরঝিলের দৃষ্টিনন্দন প্রকল্প এলাকায় নির্মিত এই ভবনটি ভাঙতে ২০১১ সালে নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। ওই রায়ের পর বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ লিভ টু আপিল করে। আপিলের সেই আবেদন খারিজ হলে রিভিউ আবেদন করা হয়। ১৯৯৮ সালে বিজিএমইএ ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়। নির্মাণ শেষে ২০০৬ সালে ভবনটি উদ্বোধন করা হয়। পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠনের দাবি, উন্মুক্ত স্থান ও প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইন-২০০০ লঙ্ঘন করে প্রাকৃতিক জলাধারের শ্রেণি বা প্রকৃতি পরিবর্তনের জন্য গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়াই বিজিএমইএ ভবন নির্মাণের জন্য বেগুনবাড়ী খালের একাংশ ভরাট করে  ফেলা হয় এবং এতে খালের গতিপথ পরিবর্তিত হয়েছে, এটি পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow