Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৯ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:১৯
পুলিশের পিটুনিতে নিহত
জয়পুরহাটে তুলকালাম ব্যাপক ভাঙচুর, গুলি
জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার হারুঞ্জা গ্রামে এক আসামিকে ধরতে গিয়ে কালাই থানা পুলিশের পিটুনিতে আসামির চাচা সাইদুর রহমান নিহত হওয়ায় তুলকালাম অবস্থা হয়েছে। এ ঘটনায় গ্রামবাসী ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। এ সময় পুলিশ অন্তত ২০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল ভোরে কালাই থানা পুলিশের এসআই আসাদ ও রফিকুলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ হারুঞ্জা গ্রামের শাহপাড়ায় নারী নির্যাতন মামলার পলাতক আসামি শাপলাকে ধরতে যায়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে বাড়ির লোকজনের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে প্রতিবেশী ও আসামির চাচা সাইদুর রহমান এগিয়ে আসেন। তাদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশ সাইদুরকে বেদম প্রহার করে। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ অবশ্য তখনই সাইদুরকে চিকিৎসার কথা বলে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী হাসপাতাল ঘিরে ফেলেন। তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে হাসপাতালের ভিতরে থাকা পুলিশের মাইক্রোবাস, দুটি মোটরসাইকেল, হাসপাতালের গেট ভাঙচুর করেন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ, অন্তত ২০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও শটগানের গুলিবর্ষণসহ টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় চার পুলিশসহ আটজন আহত হন। আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য জয়পুরহাট হাসপাতাল ও বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কালাই শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সহকারী পুলিশ সুপার সাজ্জাদ হোসেন জানান, এ ঘটনায় এসআই আসাদ, এসআই রফিকুল ও কনস্টেবল রাশেদুল ও সেলিমকে কালাই থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow