Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০৩
একাধিক সম্ভাবনাময় প্রার্থী আওয়ামী লীগ-বিএনপিতে
নেয়ামত হোসেন, চাঁদপুর
একাধিক সম্ভাবনাময় প্রার্থী আওয়ামী লীগ-বিএনপিতে

চাঁদপুর-৩ (সদর-হাইমচর) আসনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির একাধিক সম্ভাবনাময় মনোনয়ন প্রত্যাশী নির্বাচনী তত্পরতা শুরু করেছেন। সভা-সমাবেশসহ সামাজিক বিভিন্ন কার্যক্রমে উপস্থিতি ছাড়াও গত ঈদুল ফিতর, ঈদুল আজহা ও দুর্গাপূজাকে সম্ভাব্য প্রার্থীরা কাজে লাগিয়েছেন।

নির্বাচনী এলাকায় তারা পোস্টার, ডিজিটাল ব্যানার, ফেস্টুন ও তোরণ নির্মাণের মাধ্যমে প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন।

চাঁদপুর-৩ (সদর-হাইমচর) আসনটি বরাবরই বিএনপির দুর্গ হিসেবে পরিচিত। বেশিরভাগ সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত ডা. দীপু মনি বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। চাঁদপুরের এ আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দলের অন্তত নয়জন প্রার্থীর নাম আলোচনায় রয়েছে। আসনটিতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি দলীয় নেতা-কর্মীদের কাছে নিজেদের গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। চাঁদপুর-৩ আসনে দুবারের এমপি সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি দলের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। প্রতি মাসেই দু-তিনবার এলাকায় এসে দলীয় ও সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেন তিনি।

এ আসনে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বিগত দুটি নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছিলেন। এবারও তিনি এ আসনের বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসা, মন্দির, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর তহবিলের দান-অনুদান অব্যাহত রেখেছেন। গত হজে চান্দ্রা ইউনিয়নের দুই ব্যক্তিকে সরকারিভাবে হজে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন তিনি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দীপু মনিকে ছাড় দিলেও একাদশ নির্বাচনে তিনি ছাড় দিতে রাজি নন। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় মত্স্যজীবী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক, জেলা মত্স্যজীবী লীগের সভাপতি ও এফবিসিসিআইর সদস্য আলহাজ রেদোয়ান খান বোরহান এই আসনের মাঠে-ময়দানে গণসংযোগ করছেন। বিএনপি থেকে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক। প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও তিনি নিয়মিত এলাকায় যাতায়াত করছেন। এমনকি মামলা-হামলায় জর্জরিত নেতা-কর্মীদের পাশে থেকে সব প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলা করে চলছেন। দলের দুর্দিনে নেতৃত্বদানকারী এই তরুণ নেতার ব্যাপক জনপ্রিয়তাও রয়েছে। এ ছাড়াও বিএনপি থেকে তিনবারের সাবেক এমপি জি এম ফজলুল হক, চাঁদপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান ভূইয়া ও ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা খান সফরী নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগসহ সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ অব্যাহত রেখেছেন। সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মহসিন খান নিজেকে দলের প্রার্থী হিসেবে মাঠপর্যায়ে পরিচিত করতে সমর্থ হয়েছেন। গণফোরামের একমাত্র প্রার্থী চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সেলিম আকবরও প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow