Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২৩:২৪
ছাত্রীদের ওপর হামলা ছাত্রলীগের
রাজশাহী আইএইচটি বন্ধ
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের উত্পাত বন্ধ ও নিরাপত্তার দাবিতে রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজিতে (আইএইচটি) আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর হামলা চালিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। গতকাল সকালে অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ জানিয়ে হোস্টেলে ফেরার পথে হামলার এ ঘটনা ঘটে। এতে ছয় ছাত্রী আহত হয়েছেন। তারা হলেন ফার্মেসি দ্বিতীয় বর্ষের রুপা (১৯), নাজনিন আক্তার (১৮); ল্যাবের নিশাত (১৮), ল্যাব প্রথম বর্ষের মোহনা, আফরিন শারমিন ও বৃষ্টি। এর পরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। ছাত্রদের দুপুর ১টা ও ছাত্রীদের ৩টার মধ্যে হোস্টেল খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বহিরাগতদের উত্পাত বন্ধ ও নিরাপত্তার দাবিতে আইএইচটির ছাত্রীরা সকাল ১০টার দিকে অধ্যক্ষের কাছে যান। লিখিত অভিযোগ করার পরও কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় ছাত্রীরা অধ্যক্ষের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। একপর্যায়ে অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করেন। এ সময় ছাত্রলীগের একটি পক্ষ ছাত্রীদের পাশেই অবস্থান নেয়। পরে পুলিশ আন্দোলনরত ছাত্রীদের অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের করে আনার সময় ছাত্রীদের ওপর হামলা চালান ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। আহত ছাত্রীরা জানান, ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা প্রায়ই ছাত্রীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন। ছাত্রী হোস্টেলেও তারা ঢুকে পড়েন। দীর্ঘদিন ধরে তারা অধ্যক্ষের কাছে এ বিষয়ে মৌখিক অভিযোগ করে আসছেন। গতকাল লিখিত অভিযোগ নিয়ে যান। অধ্যক্ষ তাদের লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরও কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস না দিলে, তারা সেখানে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। এরপর পুলিশ ও অধ্যক্ষের আশ্বাসে তারা হোস্টেলে ফেরার পথে আইএইচটি ছাত্রলীগ সভাপতি জাহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। নগরীর রাজপাড়া জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রাশিদুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে থাকায় পরিস্থিতি বেশি দূর গড়াতে পারেনি। বর্তমানে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইএইচটি ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন আছে। আইএইচটি অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘বিভিন্ন দাবি নিয়ে ছাত্রীরা আমার কাছে এসেছিল। তবে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে তাদের হোস্টেলের ভিতরে চলে যেতে বলা হয়। কিন্তু এখান থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর তাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।’ এ ঘটনার জেরে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়। অধ্যক্ষ বলেন, ‘এ ঘটনার পর তত্ক্ষণাৎ অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সভা ডাকা হয়। সভা শেষে আইএইচটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow