Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৩১
উন্নয়নের শতভাগ সুফল মিলবে নির্বাচনে
—— আ জ ম নাছির
রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম
উন্নয়নের শতভাগ সুফল মিলবে নির্বাচনে

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, উন্নয়নের শতভাগ সুফল মিলবে আগামী জাতীয় নির্বাচনে। উন্নয়ন নিয়ে বিভ্রান্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, উন্নয়ন নিয়ে বিভ্রান্তি যুগে যুগে ছিল। ভ্রান্ত ধারণা সৃষ্টির তৎপরতা ঠিকবে না কখনোই। ন্যায় ও সত্যের জয় হবেই। সত্যকে   ঠেকিয়ে রাখা যায় না। বাংলাদেশ প্রতিদিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) কার্যক্রম লক্ষ্যমাত্রা এবং জনআকাঙ্ক্ষা নিয়ে মন্তব্য করেছেন। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে একটি চক্র অপতৎপরতায় লিপ্ত বলে মন্তব্য করছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। চট্টগ্রাম শহরে সরকারের উন্নয়ন কাজ আগামী নির্বাচনে কেমন প্রভাব ফেলতে পারে জানতে চাইলে মেয়র নাছির বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর যে উদার আন্তরিক পদক্ষেপ, এর শতভাগ সুফল পাওয়া যাবে। শহরের সব কটি এলাকায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিজয় হবে ইনশা আল্লাহ। চসিকের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ-সংক্রান্ত প্রশ্নে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, যেখানে পূর্ণ মেয়াদেও কাজ শেষ করা যায় না, সেখানে অর্ধেক সময়েরও আগে শহরজুড়ে বিলবোর্ড উচ্ছেদে সফলতা এসেছে। হকার উচ্ছেদ, পরিচ্ছন্নতা, আলোকায়ন, রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়েছে। তবু উদ্দেশ্যমূলক অপপ্রচার করছে একটি মহল। চসিক ছাড়াও নানাভাবে নিজের সামাজিক ও ক্রীড়া সম্পৃক্ততায় জনমতের আলোকে মেয়র বলেন, মানুষের আস্থা, নির্ভরতা ও আশাবাদ থেকে মনে হয়, উন্নয়নে শতভাগ সুফল পাওয়া যাবে জাতীয় নির্বাচনে। মহানগরীর তিন পূর্ণ আসন ও তিন আংশিক আসনের সব কটি এলাকায় আওয়ামী লীগ জিতবেই ইনশা আল্লাহ। মেয়র এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, কর বাড়ানো বা নতুন কর আরোপের কোনো এখতিয়ার সিটি করপোরেশনের নেই। এর পরও একশ্রেণির স্বার্থান্ধ মহল সিটি করপোরেশনের উন্নয়ন র্কাযক্রমকে বাধাগ্রস্ত করতে নানামুখী অপতৎপরতায় জড়িত। মেয়র বলেন, নাগরকিদের দেওয়া কর দিয়েই সিটি করপোরেশেন পরিচালিত হয়। সরকার আইন ও গেজেট প্রকাশ করে কর নির্ধারণ করে থাকে।

অথচ চক্রটি নানাভাবে অপপ্রচার করে সিটি করপোরেশনের রাজস্ব আদায়ের বিষয়ে বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য ও অপপ্রচার চালিয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে চসিকের নানা পদক্ষেপ তুলে ধরেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। তিনি বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে ৩৬ খালের মাটি উত্তোলন ও অপসারণ কাজের জন্য ১৮ কোটি টাকার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। জাইকার অর্থায়নে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে মহেশ খাল ও ডাইভারশন খাল-সংলগ্ন রাস্তা ও প্রতিরোধ দেয়াল নির্মাণ এবং ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে আটটি ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

up-arrow