Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:২১
সংসদ অধিবেশন সমাপ্ত
আরও চার বিল পাস
নিজস্ব প্রতিবেদক

মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতার পরিধি বৃদ্ধি, সরকারি শিল্পপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিকদের সুবিধা বৃদ্ধি, জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে এবং দেশের খেলাধুলার উন্নয়নে গতকাল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে চারটি বিল।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের ২২তম অধিবেশনে গতকাল এসব বিল পাস হয়। বিলের ওপর আনীত সংশোধনী, জনমত যাচাই ও বাছাই কমিটিতে প্রেরণের প্রস্তাবসমূহ কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

উত্তরাধিকারের অবর্তমানে ভাতা পাবেন মুক্তিযোদ্ধার ভাই-বোন : প্রতিরক্ষা বাহিনী, পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত ও নিয়মিত আয়ের উৎস থাকা মুক্তিযোদ্ধাদেরও সম্মানী ভাতা পাওয়ার অধিকারী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে সংসদে পাস হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট আইন, ২০১৮ বিল। বিলে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা গ্রহণের ক্ষেত্রে উত্তরাধিকার হিসেবে স্বামী/স্ত্রী/সন্তান/পিতা-মাতার অবর্তমানে মুক্তিযোদ্ধার ভাই-বোনকে ভাতা গ্রহণের অধিকার দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পশ্রমিকদের চাকরির শর্তাবলি আইন : ২০১৬ সালের ১ জুলাই থেকে ভূতাপেক্ষ কার্যকারিতা দিয়ে সংসদ পাস করেছে ‘পণ্য উৎপাদনশীল রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পপ্রতিষ্ঠান শ্রমিক (চাকরির শর্তাবলি) বিল, ২০১৮’। বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্ট : গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন ও পরিচালনার জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্ট বিল, ২০১৮ পাস করেছে সংসদ। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ আইন : খেলা ও খেলোয়াড়দের উন্নয়নে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পরিচালনার দায়িত্ব সাধারণ পরিষদ ও কার্যনির্বাহী পরিষদের ওপর সমানভাবে ন্যস্ত রেখে পাস হয়েছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বিল, ২০১৮। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন। তবে বিলের ওপর আনা তাদের সংশোধনী, জনমত যাচাই বাছাই কমিটিতে প্রেরণের প্রস্তাব কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ হলেন নুরুল ইসলাম ওমর : সংসদে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপের দায়িত্ব পেয়েছেন জাতীয় পার্টির এমপি নুরুল ইসলাম ওমর (বগুড়া-৬)। বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মো. তাজুল ইসলামের (কুড়িগ্রাম-২) ইন্তেকালে এ পদটি শূন্য হয়। ১৩ আগস্ট তিনি ইন্তেকাল করেন।

 

সংসদে বিরোধী দলের কার্যালয় থেকে প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। জানা যায়, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের অনুরোধে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ হিসেবে ওমরের মনোনয়ন অনুমোদন করেন। গতকাল তিনি সংসদে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপের কার্যালয়ের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

মো. নুরুল ইসলাম ওমর ১৯৫৫ সালের ১৩ জানুয়ারি বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ’৭১ সালে বগুড়া মিউনিসিপ্যাল হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ’৭৩ সালে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ২০১০ সালে ঢাকার দারুল ইহসান ইউনিভার্সিটি থেকে বিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তিনি এবারই প্রথম এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow