Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২১

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত আজ

গাজীপুর ও টঙ্গী প্রতিনিধি

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত আজ

টঙ্গীর তুরাগ তীরে তাবলীগ জামাতের বার্ষিক মহাসম্মেলন বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে মাওলানা সা’দ অনুসারীদের আখেরি মোনাজাত আজ। সকাল ১০টায় দিল্লির মাওলানা শামীমের পরিচালনায় আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। এই মোনাজাতের মধ্য দিয়েই এবারের ৫৪তম বিশ^ ইজতেমার সমাপ্তি ঘটবে। মোনাজাত শেষে মুসল্লিরা নিজ নিজ শামিয়ানা নিয়ে ময়দান ত্যাগ করবে এবং প্রশাসনের হাতে মাঠ বুঝিয়ে দেবেন। আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে টঙ্গী ও আশপাশ এলাকার কলকারখানা ছুটি ঘোষণা ও  টঙ্গী-কালিগঞ্জ সড়ক, কামারপাড়া সড়ক, আশুলিয়া সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

গতকাল প্যান্ডেলে অবস্থানরত মুসল্লিরা জিকির আসকার, হেদায়েতি বয়ান শোনা ও খিত্তায় খিত্তায় জামাত তৈরি করা দিয়ে দিন পার করেন। গতকাল বয়ান করেন বাদ ফজর দিল্লির মাওলানা রিয়াসত আলী, বাংলায় তরজমা করেন মাওলানা মোহামুদুল্লাহ, বাদ জোহর দিল্লির মাওলানা  সেহজাদ, বাংলায় তরজমা করেন মনির বিন ইউসুফ, বাদ আসর সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম, বাদ মাগরিব ভারতের মাওলানা শওকত, বাংলা তরজমা করেন মুফতি জিয়া বিন কাশেম। আজ সকালে হেদায়েতি বয়ান করবেন হাফেজ ইকবাল তরজমা করবেন উসামা বিন ওয়াসিফ।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্য দিয়ে রবিবার সকালে সা’দ অনুসারীদের বিশ্ব ইজতেমার কার্যক্রম শুরু হয়। ইতিমধ্যে ইজতেমা ময়দানে কয়েক লাখ মুসল্লি অবস্থান নিয়েছেন। গতকাল ভোরে হালকা শীত ও কুয়াশা থাকলেও সকাল থেকে সারাদিন ইজতেমা ময়দান এলাকায় রৌদ্রোজ্জ্বল আবহাওয়া ছিল।

এক মুসল্লির মৃত্যু : রবিবার দিবাগত রাতে বার্ধক্যজনিত কারণে বগুড়ার দুপচাচিয়া উপজেলার দেবখ  গ্রামের লেবু খানের ছেলে ইসমাইল হোসেন মাস্টার মৃত্যুবরণ করেছেন। গতকাল ফজরের নামাজের পর ইজতেমা ময়দানে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  

যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ : আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে ইজতেমাস্থলে মুসল্লিদের আসা ও যাওয়ার জন্য যানবাহন চলাচলে বিশেষ ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। গতকাল দুপুরে বিশ্ব ইজতেমা ময়দান-সংলগ্ন শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে স্থাপিত পুলিশ কন্ট্রোল রুমের সামনে এক বিফ্রিংয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান বলেন, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সরকার ইজতেমা একদিন পিছিয়ে। ফলে মঙ্গলবার সকালে আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। এ মোনাজাতের জন্য নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থা আগের আখেরি মোনাজাতের মতোই নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ সোমবার মধ্যরাত হতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের জয়দেবপুর চান্দনা চৌরাস্তার ভোগড়া বাইপাস, টঙ্গী ব্রীজ, আশুলিয়া সড়কের কামারপাড়া ব্রিজ ও টঙ্গী-নরসিংদী সড়কের মীরেরবাজার এলাকায় ব্যারিকেড দিয়ে সব ধরনের যানবাহন টঙ্গীতে প্রবেশ বন্ধ রাখা হবে। ইজতেমা শেষে মুসল্লিদের যাওয়ার সময়ও একই ব্যবস্থাপনা অব্যাহত থাকবে।

আদর্শগত মিল না থাকলে ঐক্য নয় : আখেরি মোনাজাত পরিচালনা, সামনের বছর অনুষ্ঠিতব্য বিশ^ ইজতেমা ও মাওলানা সা’দের আগমনসহ নানা বিষয় নিয়ে বিশ^ ইজতেমা ময়দানে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সাদপন্থিরা। গতকাল বিকালে ইজতেমা ময়দানে সংবাদ সম্মেলনে দেশি মুসল্লিদের জিম্মাদার মাওলানা আশরাফ আলী বক্তব্য রাখেন। তিনি জানান, এ বছর মাওলানা সা’দ কান্ধলভি ইজতেমায় আসেননি। তবে তার পক্ষে ৩২ জনের একটি প্রতিনিধি দল এসেছেন। তাদের মধ্য থেকে মাওলানা শামীম মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ইজতেমায় আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মাওলানা সা’দ কান্ধলভিকে যারা আমির মানেন তারা চাইছেন বিশ^ ইজতেমায় প্রতি বছরের মতো তিনি আসবেন। তার মাধ্যমেই বিশ^ ইজতেমা তথা সারা দুনিয়া উপকৃত হয়। এ জন্য আগামী বছর তাঁর অংশগ্রহণ আমরা নিশ্চিত করতে চাই। মাওলানা সাদের অনুমতি নিয়ে আমাদের ইজতেমার তারিখ নির্ধারণ করতে হয়। এই কারণে আগামী বছর ইজতেমার তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। বিভাজনের বিষয়ে আদর্শগত বিরোধকে দায়ী করে মাওলানা আশরাফ আলী আরও বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত আদর্শগত পার্থক্য থাকবে তত দিন ইজতেমা একসঙ্গে করার প্রশ্নই আসে না। আদর্শ ভিন্ন রেখে একসঙ্গে হওয়া মানে হচ্ছে সংঘাতকে ডেকে আনা। সংবাদ সম্মেলনে এ সময় বিদেশি জামাতের সমন্বয়কারী রেজা আরিফ, আবদুল্লাহ শাকিলসহ ইজতেমার মুরব্বিরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে টঙ্গীর তুরাগ তীরে ইজতেমা ময়দানে অনুষ্ঠিত হচ্ছে তাবলিগ জামাতের ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমা। ১৫ ও ১৬ ফেব্রুয়ারি ইজতেমার কার্যক্রম পরিচালনা করেন মাওলানা জুবায়েরের অনুসারীগণ। ১৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় তাদের বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত। পরে রবিবার থেকে শুরু হয়েছে সা’দ অনুসারীদের ইজতেমার কার্যক্রম।


আপনার মন্তব্য