Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:১০
উচ্চ বুদ্ধিমত্তার লক্ষণ মানসিক বিশৃঙ্খলা!
অনলাইন ডেস্ক
উচ্চ বুদ্ধিমত্তার লক্ষণ মানসিক বিশৃঙ্খলা!

সম্প্রতি বিজনেস ইনসাইডার'র এক প্রতিবেদনে গবেষকরা জানান, যারা সহজেই স্নায়বিক দূর্বলতায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাদেরকে সবচেয়ে বেশি দ্রুত সতর্ক হতে দেখা গেছে এবং তাদের কার্যকারিতা বেশি বলে মনে হয়েছে। এর আগের আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে, সহজেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এমন লোকেরা শান্তদের চেয়ে অনেক দ্রুত কোনো হুমকি শনাক্ত করতে পারেন এবং ধোঁয়ার গন্ধ পান।

এছাড়া নিউইয়র্কের সানি ডাউনস্টেট মেডিক্যাল সেন্টার এর মনোচিকিৎসক জেরেমি কপলান উদ্বেগজনিত মানসিক বিশৃঙ্খলায় আক্রান্তদের নিয়ে একটি গবেষণা চালান। এতে তিনি এবং তার সহকর্মীরা দেখতে পান, যাদের উদ্বেগজনিত মানসিক বিশৃঙ্খলার তীব্রতা বেশি তারা উচ্চ বুদ্ধিমত্তার অধিকারী। সহজেই বেশি বেশি উদ্বেগে আক্রান্ত হন যারা তারা অনুসন্ধানী মনের অধিকারী হন। আর এই ধরনের লোকেরা যে কোনো পরিস্থিতি ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিকোন থেকেও বিচারে সক্ষম। গবেষকরা জানান, “মৌখিক কথপোকথনে বুদ্ধিমান লোকেরা অতীত এবং ভবিষ্যত ঘটনাবলী বিস্তারিতভাবে বিচার বিশ্লেষণ করতে পারেন। যা তাদেরকে তীব্রভাবে চিন্তিত এবং উদ্বেগে আক্রান্ত করে। যারা ভবিষ্যতের কোনো পরিণতি নিয়ে সহজেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন তারা হয়তো ভবিষ্যত কোনো দুর্যোগের আগাম অনুমান করতেও সক্ষম।  

তবে কেউ কেউ মনে করেন, যারা সহজেই উদ্বেগজনিত মানসিক বিশৃঙ্খলায় আক্রান্ত হন তারা পরিষ্কার করে কোনো কিছু নিয়ে ভাবতে পারেন না। যদিও নিকোলা তেসলা, চার্লস ডারউইন এবং কুট গোডেলের মতো ইতিহাসের বিখ্যাত মেধাবী চিন্তাবিদরা উদ্বেগজনিত মানসিক বিশৃঙ্খলায় ভুগতেন। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কনও এ ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত ছিলেন। এডভার্ড মাঞ্চ এর মহাকাব্যিক শিল্পকর্ম ‘দ্য স্ক্রিম’ এর ধারণা তার মাথায় এসেছিল যখন তিনি একবার তীব্র আতঙ্কজনিত উদ্বেগ এবং মানসিক বিশৃঙ্খলায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। সে সময় তার মানসপটে একটি রক্তলাল আকাশের চিত্র ভেসে উঠেছিল।

বিডি-প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow