Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০৬:৩৮
সংসার সুখী রাখতে রান্নাঘরে রাখুন পানি ভরা বালতি
অনলাইন ডেস্ক
সংসার সুখী রাখতে রান্নাঘরে রাখুন পানি ভরা বালতি

গৃহস্থালির কাজে নারী অদ্বিতীয়া। এসব কাজে তাদের তুলনা আর কারও সাথে চলে না।

 নারীর গুণে সংসার হয়ে ওঠে মধুর। কিন্তু মাঝে-মধ্যে এমন কিছু ভুল কাজের ফলে সুখী সংসারেও আগুণ জ্বলতে পারে।

সংসার অতি বিচিত্র। পরিবারে সুখ-শান্তি বজায় রাখতে গেলে নানা ধরনের নিয়মকানুন পালন করে চলতে হয়। আবার সেই সমস্ত নিয়মের ব্যঘাত ঘটলে সুখী পরিবারে নেমে আসে ভয়ংকর অশান্তি। জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, রাতে ঘরের নারীদের এমন কিছু কাজ করা উচিত নয়, যার কারণে সংসারে অশান্তি প্রবেশ করতে পারে। আজ আমরা তেমনই কয়েকটি কাজের কথা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো।

১) সূর্য ডুবে যাওয়ার পরে ভুলেও কারও কাছে দুধ, দই, লবন, তেল বা পেঁয়াজ চাইতে যাবেন না। মনে রাখবেন, এই পাঁচটি জিনিসের মধ্যে কোনও একটিও যদি কারও থেকে গ্রহণ করেন, তাহলে সংসারে নানান বাধা-বিপত্তি তৈরি হতে শুরু করবে।

২) রাতে শুতে যাওয়ার সময় ভুলেও মাথার চুল ভেজাবেন না। এমন করলে আপনার পরিবারে প্রতিদিন অশান্তি দেখা দেবে, যা সমাধানের পথ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হবে।

৩) জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, প্রতি রাতে শুতে যাওয়ার আগে প্রত্যেক ঘরে অল্প পরিমাণে সন্ধব লবণ অথবা বিটলবণ কাগজে মুড়ে বিছানা অথবা ফরাস বা সোফার ওপর রেখে দেওয়া উপকারী। এতে সংসারে ক্ষতিকারক যে কোনও অশুভ শক্তি বিদায় নেবে। তবে মনে রাখতে হবে, সকালে ঘুম থেকে উঠে কারও সঙ্গে কথা বলার আগে সবার প্রথমে কাগজের মোড়ক-সহ লবণ বাড়ির বাইরে ফেলে দিয়ে আসতে হবে।

৪) রাতে খাওয়ার পরে এঁটো বাসনপত্র সঙ্গে সঙ্গে ধুয়ে রেখে দিন। মনে রাখবেন, রান্নাঘরে রাতভর এঁটো বাসনপত্র রাখা অশুভ। এই কাজটি করলে শান্তি বরাবরের মতো আপনার সংসার ত্যাগ করবে। রাতে রান্নাঘরের দরজা বন্ধ করার আগে ঘরটি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে রাখবেন, তাতে সংসারে শান্তি ও প্রাচুর্য বজায় থাকবে।

৫) রাতে শুতে যাওয়ার ঘর-দোর ঝাঁট দেওয়ার কাজে ব্যবহৃত ঝাড়ুটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে মুখ ঘুরিয়ে নজরের আড়ালে রেখে দিতে ভুলবেন না। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, এতে সংসারে সুখ ও ধনলাভ হয়।

৬) শুতে যাওয়ার আগে রাতে রান্না ঘরে একটি বালতিতে পানি ভরে রেখে দিন। এতে সংসারে সুখ ও সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পায়। অন্যদিকে, খালি বালতি রাখলে অশান্তির উপক্রম হয়।

 

বিডি-প্রতিদিন/১৪ অক্টোবর, ২০১৬/তাফসীর

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow