Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৯:০৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:৩০
তেরোর আগেই পিরিয়ডে বাড়ে স্ট্রোক ঝুঁকি!
অনলাইন ডেস্ক
তেরোর আগেই পিরিয়ডে বাড়ে স্ট্রোক ঝুঁকি!

বর্তমান সময়ে ১০-১৫ বছর বয়সের মধ্যেই বেশির ভাগ নারীর পিরিয়ড শুরু হয়ে যায়। তবে ১৩ বছর বয়সের আগে পিরিয়ড শুরু হওয়া মোটেই ভালো নয়।

এর ফলে পরর্তীকালে স্ট্রোক হওয়ার আশঙ্কা থাকে প্রবল।

সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় এমনই তথ্য উঠে এসেছে। শুধু তাই নয়, পরবর্তীকালে সেইসব নারীদের সেরেব্রাল ইনফারক্সন হওয়ার শঙ্কাও প্রবল বলে মনে করছেন সমীক্ষকরা।

টোহকু ইউনিভার্সিটি এবং জাপানের টোকিও ইউনিভার্সিটির একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ৪৫ বছর বয়সের আগে যাদের মেনোপজ শুরু হয়ে যায় তাদের ক্ষেত্রেও সেরেব্রাল ইনফারক্সন হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। একজন মেয়ের সুস্থতার ক্ষেত্রে পিরিয়ড সার্কেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পিরিয়ড সময়ের আগে শুরু হওয়া বা বন্ধ হয়ে যাওয়া দুই-ই খারাপ। শুধু শারীরিক সমস্যাই নয়, এর ফলে একজন নারীর শরীরে দেখা দিতে পারে বিভিন্ন রোগ।

পিরিয়ডের সঙ্গে স্ট্রোকের সম্পর্ক কতটা, তা জানতে গবেষণা চালান জাপানের একদল বিশেষজ্ঞ। ১ হাজার ৪১২ জন এমন নারীকে এই গবেষণার জন্য বাছা হয়, যাদের ইতিমধ্যেই মেনোপজ শুরু হয়ে গেছে।

তাদের পিরিয়ডের শুরু হওয়ার (মেনারকি) বয়স ও পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়ার (মেনোপজ) বয়স তুলনা করে দেখা গেছে, ১৩ বছরের আগে যাদের পিরিয়ড শুরু হয়েছিল বা ৪৫ বছর বয়সের আগে যাদের মেনোপজ শুরু হয়েছে তাদের শরীরে বিভিন্ন সমস্যা বেশি। কারও স্ট্রোক হয়েছে। কারও বা ওজন, উচ্চতা, হার্টের সমস্যা। আবার কেউ ভুগছেন হাইপারটেনশনে।

বিডি প্রতিদিন/১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/এনায়েত  করিম

আপনার মন্তব্য

up-arrow