Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১১:০১ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:২০
স্বল্প পরিচয়ে ব্যক্তিত্ববান মানুষের আচরণ
অনলাইন ডেস্ক
স্বল্প পরিচয়ে ব্যক্তিত্ববান মানুষের আচরণ
প্রতীকী ছবি

আপনি কতটুকু ব্যক্তিত্ববান তা কারও সঙ্গে আপনার প্রথম পরিচয় অনেকটাই জানান দেয়। প্রথম সাক্ষাতে কাউকে ভালো লাগলে সেই ভাললাগা থাকে দীর্ঘদিন।

ঠিক তেমনি এর উল্টোটিও আছে। তাই প্রথম সাক্ষাতে নিজের ব্যক্তিত্ব ফুটিয়ে তোলা জরুরি। আপনি কতটা ব্যক্তিত্বসম্পন্ন মানুষ তা প্রকাশ পায় আপনার আচরণে। আপনি কীভাবে কথা বলেন, অন্যকে কতটা শ্রদ্ধার চোখে দেখেন, অন্যের গোপনীয়তাকে কতটা মূল্য দেন তার উপর অনেকটাই নির্ভর করে আপনার ভাবমূর্তি। তাই জেনে নিন কোন বিষয়গুলো স্বল্প পরিচয়ে কখনোই আলোচনায় আনা উচিত নয়।

পোশাকের দাম
স্বল্প পরিচয়ে কারও পোশাক-পরিচ্ছদ নিয়ে প্রশ্ন করাই উচিত নয়। হ্যাঁ, প্রশংসা করতে পারেন কিন্তু ভুলেও দাম জিজ্ঞাসা করতে যাবেন না। এটা আপনার নিচু মানসিকতা ও অবস্থান জানান দেয়। ঠিক তেমনি আপনার কোন পোশাকটা কত দিয়ে কিনলেন সেটাও জানাতে যাবেন না, তা সে যত দামিই হোক। তাহলে আপনার বিপরীতে যে আছে সে হয়ত মনে করবে আপনি সম্প্রতি কিছু টাকা-পয়সার মালিক হয়েছেন, সেটা জানানোর জন্যই এসব বলছেন।
 
আপনি কি বিবাহিত/সিঙ্গেল?
একজন মানুষ বিবাহিত কিনা, কারও সাথে সম্পর্কে আছেন কিনা এটি খুবই উদ্দেশ্যমূলক প্রশ্ন। আপনি যাকে প্রশ্নটি করছেন, এই প্রশ্নের সাথে সাথেই তিনি আপনাকে একজন সুবিধাভোগী মানুষ হিসেবে বিবেচনা করবেন। তাই অন্যের ব্যক্তিগত বিষয়ে প্রশ্ন করতে সময় নিন। খুব জানতে ইচ্ছা করলে সময় নিয়ে কৌশলে জানুন।

কে ফোন করেছে?
কিছুক্ষণের পরিচয় হোক আর কিছুদিনের, যখন মানুষটি আপনার ঘনিষ্ঠ নয় তখন আপনি কোনভাবেই তাকে প্রশ্ন করতে পারেন না ফোনের ওপাশে কে ছিল। এটি খুবই বিরক্তিকর এবং অনধিকারচর্চা। সামনের মানুষটি আপনাকে একজন কর্তৃত্বপরায়ণ মানুষ হিসেবে ধরে নিতে পারেন।

আপনার স্ত্রী বা স্বামী কী করেন?
এটি একটি ব্যক্তিগত প্রশ্ন। অনেকে এটা বলতে গর্ববোধ করেন, অনেকে লুকাতে চায়। তাই আপনি যে কাজে তার সাথে সম্পৃক্ত শুধু সে বিষয়েই নিজের আলোচনা সীমাবদ্ধ রাখুন। তার পার্টনার কী করেন সেটা জানতে চাওয়াটা আপনার ব্যক্তিত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

আপনাদের সম্পর্ক কেমন?
স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক কেমন এটা জানার অধিকার তারা কাদেরকে দেবেন সেটা তারা নির্ধারণ করবেন। আপনি বাইরে থেকে জানতে চাইতে পারেন না। এই প্রশ্নের অর্থ হচ্ছে আপনি তাদের বাজে সম্পর্কের সুযোগ নিয়ে ঘনিষ্ঠতাকে অন্য দিকে নিতে চাইছেন। স্বল্পপরিচয়ে কোন মানুষকে তার পারিবারিক কোন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করা উচিৎ নয়।

আপনার আয় কত?
এটি আরেকটি প্রশ্ন যা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে বিবেচিত হতে পারে। আর নিজের আয় নিয়ে বলতে অধিকাংশ মানুষ সংকোচ বোধ করেন। আর যার সঙ্গে আপনার সবেমাত্র বা কিছুদিন আগে পরিচয় হলো তার আয় জানার প্রয়োজন নিশ্চয়ই আপনার নেই। অযাচিত প্রশ্ন করে অপমানিত হবেন না। আত্মনিয়ন্ত্রণ শিখুন, চর্চা করুন।


বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

up-arrow