Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:১৬ অনলাইন ভার্সন
দীর্ঘ বিরতির পর কর্মোদ্যমের জন্য করণীয়
অনলাইন ডেস্ক
দীর্ঘ বিরতির পর কর্মোদ্যমের জন্য করণীয়

মাতৃত্বকালীন ছুটি ও অসুস্থতাসহ বিভিন্ন কারণে কর্মস্থল থেকে দীর্ঘ ছুটির ফাঁদে পড়তে পারেন নারীসহ যে কেউ। বিশেষ করে নারী চাকরীজীবীদের ক্ষেত্রে মাতৃত্বকালীন ছুটিতো এখন বাধ্যতামূলক। ফলে সন্তান জন্ম দেয়ার আগের কয়েকটা মাস নারীদেরকে কর্মস্থলের বাইরে কাটাতে হয়। পুরুষ কর্মীদেরও কখনো কখনো অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন অফিসের বাইরে থাকতে হয়। ফলে দীর্ঘ বিরতি দিয়ে কর্মস্থলে ফিরলে শুরুতে তাদের মধ্যে কাজে এক ধরনের অনীহা বা উদ্যমের ঘাটতি দেখা যায়। হওয়াটাই স্বাভাবিক। দীর্ঘ ছুটি কাটিয়ে কিভাবে কর্মস্থলে শুরুতেই উদ্যম ফিরে পাবেন নিচে তেমনই কয়েকটি টিপস দেয়া হলো :

১. প্রথমেই কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্তটি বিশ্লেষণ করতে হবে। কাজটা বেশ বিভ্রান্তিকর মনে হতে পারে। সন্তান জন্মের পর তাকে নিয়েই ব্যস্ত থাকবেন? নাকি পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে কাজে ফেরা সম্ভব? আপনি কাজ করতে কতটা ইচ্ছুক? এর দ্বারা কতটুকু লাভবান হতে পারেন? এসব প্রশ্নের জবাব খুঁজুন। প্রয়োজনে পরিবারের অভিজ্ঞজনের সঙ্গে পরামর্শ করুন।
২. কাজে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত যেহেতু নিয়েই ফেলেছেন, কাজেই আত্মবিশ্বাস ফেরাতে হবে। মূলত যে নারীরা কাজে ফেরার আত্মবিশ্বাস পান না, তাঁরাই চাকরি ছেড়ে দেন। কোহেনের মতে, পরিবারের অবিবেচক সদস্যরাও নিরুৎসাহিত করেন। এসব বাধা কাটিয়ে উদ্যোগী হতে পারেন। একবার পথে ফিরলেই প্রাণোচ্ছলতায় ভাসতে থাকবেন।
৩. আবার এ সুযোগে ভিন্ন পথে নতুন ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন। এ দীর্ঘ সময়ে কোন ক্ষেত্রে আপনার এগিয়ে যাওয়ার অবাধ সুযোগ রয়েছে তার সন্ধান চালাতে পারেন। এদিক থেকে বিবেচনা করলে অনেকের জন্য দীর্ঘ বিরতি বড় কিছু বয়ে আনতে পারে। অথবা পুরনো পথ থেকে সরে আসার সঠিক সময় এটাই।
৪. আগের অফিসেই যদি যোগ দেন, তবে দক্ষতায় শাণ দিতে থাকুন। সংশ্লিষ্ট টুকিটাকি যোগ করুন এতে। আগের চেয়ে নিপুণ হয়ে উঠতে পারেন অনায়াসে। বিরতির সময় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে দু-একটি কোর্সও সম্পন্ন করে ফেলুন। এতে কাজের উদ্যম দারুণ বৃদ্ধি পাবে।
৫. অবসরে পেশাদার নেটওয়ার্কের জাল বিস্তৃত করতে থাকুন। এর কোনো বিকল্প নেই। আবারও কাজে যোগ দেওয়ার আগে পুরনো সহকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করুন। তাঁরা আপনাকে অফিস ও বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে পারেন। অফিসে ফিরে একেবারে নতুন পরিস্থিতির মুখোমুখি হবেন না। আবার ইতিবাচক হয়ে উঠবে মানসিকতা। পুরনো কাজে নতুনভাবে ঝাঁপ দিতে অস্থিরতা কাজ করবে।
৬. কাজে ফিরে কী করতে চান বা কিভাবে এগোবেন তা অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করুন। সংসার সামলানোর পাশাপাশি পুরনো ব্যস্ততায় ফেরার উত্তেজনার কথা সঙ্গীকে জানান। পরিবারকে বোঝান, এটা আপনজনদের সঙ্গে বিচ্ছিন্নতা নয়। বরং অতীতের সঙ্গে যোগসূত্রতার সৃষ্টি।

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

আপনার মন্তব্য

up-arrow