Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৭ জুন, ২০১৬ ২১:৩৯
আপডেট : ২৭ জুন, ২০১৬ ২৩:৫০
ভিডিও না হওয়ায় বিয়ে ভাঙলেন পাত্রীর বাবা!
অনলাইন ডেস্ক
ভিডিও না হওয়ায় বিয়ে ভাঙলেন পাত্রীর বাবা!

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই দু'জোড়া হাত এক হবে। বিয়ের সব আয়োজন সম্পন্ন। পাত্র-পাত্রীর স্বজন ও অতিথিরা এসে পড়েছেন। এমন সময় পাত্রীর বাবা জানতে পারলেন বিয়ে অনুষ্ঠান ভিডিও করার ব্যবস্থা করেনি পাত্রপক্ষ। আর তাতেই বেঁকে বসেন পাত্রীর বাবা, ভাই ও স্বজনেরা। সোজা জানিয়ে দেন, এ বিয়ে হবে না।

বিয়ের আয়োজনের শেষ মুহূর্তে কন্যাপক্ষ বেঁকে বসায় পাত্রপক্ষ অবাক। এত ছোট বিষয়ে কেউ বিয়ে ভাঙে! কিন্তু পাত্রীর বাবার এক কথা। তিনি বলেন, প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল বিয়ের অনুষ্ঠান ভিডিও করা হবে। তোলা হবে ছবিও। কিন্তু সেটা করা হয়নি। এটা প্রতারণা। এ বিয়ে হতে পারে না।

এ অবস্থা চলাকালীন জ্ঞান হারান পাত্রী। তাকে নিয়ে হাসপাতালে যান আত্মীয়রা। এদিকে, পাত্রীপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ তুলে পাত্রপক্ষও পুলিশের দ্বারস্থ হয়। পাত্র নিজে পুলিশকে নিয়ে হাসপাতালে যান পাত্রীপক্ষকে রাজি করানোর জন্য। সেখানেও বাধে ঝামেলা। এতক্ষণ পাত্রীপক্ষ মানছিলেন না, এবার পাত্রীও বেঁকে বসলেন। পাত্রী বলেন, সঠিক আয়োজন না করে পাত্র তার বাবাকে অপমান করেছে।

এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের চেন্নাইয়ের ত্রিচি এলাকায়। পাত্র সেন্থিল (৩২) এবং পাত্রী রেবতী (৩০) সম্পর্কে আত্মীয়। শুরু থেকেই দুই পরিবারের মধ্যে বিয়ের কথা নিয়ে ঝামেলা চলছিল। সেন্থিল পেশায় লরি চালক। অর্থ উপার্জন খুব বেশি করতে না পারলেও রেবতীর বাবা বিশাল ধুমধাম করে মেয়ের বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। পাত্রপক্ষের সঙ্গে সে বিষয়ে বিস্তারিত কথাও হয়েছিল। কিন্তু পাত্রীপক্ষের দাবি, কথামতো কোনও আয়োজনই করেননি সেন্থিল। ভিডিওগ্রাফি ও ফটোগ্রাফির আয়োজন করার কথা ছিল, সেটাও করেননি। এই ঝামেলার সূত্র ধরেই শেষ পর্যন্ত বিয়ে ভেঙে দেন মেয়ের বাবা।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow