Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ৩০ জুন, ২০১৬ ১৮:০৬
আপডেট :
ছয় বছর পর মা-বাবার কোলে দিল্লির সোনু
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
ছয় বছর পর মা-বাবার কোলে দিল্লির সোনু

দীর্ঘ ছয় বছর পর নিজের বাবা-মায়ের কোলে ফিরে এল দিল্লি থেকে অপহৃত সোনু (১২)। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বাংলাদেশ থেকে তাকে দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিয়ে আসা হয়। লাল টি-শার্ট পরিহিত সোনুর সঙ্গে ছিলেন তাঁর বাবা মেহবুব ও মা মুমতাজ। বিমানবন্দরের বাইরে অপেক্ষারত টিভি ও পত্রিকার সাংবাদিকদের দেখে কিছুটা নার্ভাস হয়ে পড়ে ছোট্ট সোনু। বাবার হাত ধরে ক্যামেরার সামনে লাজুক মুখে শুধু বলে ‘ভাল লাগে’।  

বাবা মেহবুব জানান, ‘ছেলেকে ফিরে পেয়েছি আমি খুব খুশি। পররাষ্টমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে ধন্যবাদ জানাতে চাই’। ধন্যবাদ জানিয়েছেন সোনুকে উদ্ধারকারী ব্যক্তি জামাল ইবনে মুসাকেও। বলেন তিনি না থাকলে ছেলেকে ফিরে পেতাম না। সোনুকে দেখার জন্য বিমানবন্দরের বাইরে অপেক্ষা করছিলেন সোনুর স্বজন ও প্রতিবেশিরা।  

এদিকে বিমানবন্দর থেকে সোনুকে নিয়ে তাঁর বাবা-মা সোজা চলে যান দিল্লির জওহরলাল ভবনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রালয়ের অফিসে। সেখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে দেখা করেন তারা। সুষমার সঙ্গে দেখা করে তাঁর পায়ে হাত দিয়ে দোয়া চান ছোট্ট সোনু ও তার মা মুমতাজ। এসময় সোনুকে পরম মমতায় জড়িয়ে ধরেন সুষমা।  

এই ঘটনার পর পররাষ্ট্রমন্ত্রালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ ট্যুইট করে জানান, ‘গীতা থেকে শুরু করে গুরপ্রীত আর এখন সোনু-বাংলাদেশ থেকে নিজের দেশে ফিরে আসায় তাকে স্বাগত জানিয়েছেন সুষমা স্বরাজ। এটা একটা আবেগঘন ঘরে ফেরার মুহূর্ত’।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে পূর্ব দিল্লির নিউ সীমাপুর বস্তি এলাকা থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় সোনু। কয়েকমাস আগে বাংলাদেশের যশোরের একটি আশ্রমে তার সন্ধান মেলে। ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সোনুর বাবা মেহবুব ও মা মুমতাজ ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে দেখা করেন। সেইমতো ভারতের তরফে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা বলে ছোট্ট সোনুকে ভারতে নিজের বাবা-মায়ের কোলে ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ নেওয়া হয়। বাবা-মায়ের দাবির সত্যতা যাচাই করতে তাদের ডিএনএ’এর সঙ্গে সোনুর ডিএনএ’এর রিপোর্ট মিলিয়ে দেখা হয়। ডিএনএ রিপোর্ট সঠিক হওয়ার পরই সোনুকে ভারতে নিয়ে আসার সবুজ সঙ্কেত দেয় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ট্যুইট করে সুষমা স্বরাজ নিজেই জানান, ‘সোনুর সঙ্গে তার বাবা-মায়ের ডিএনএ রিপোর্ট মিলে গেছে’।  

এরপর সব আইনি জটিলতা কাটিয়ে গতকাল বুধবার বরগুনার একটি আদালতের তরফে ঢাকাস্থিত ভারতীয় কমিশনের হাতে সোনুকে হস্তান্তর করা হয়।  


বিডি-প্রতিদিন/ ৩০ জুন, ২০১৬/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow