Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:১২
বিশ্বের প্রথম বিজ্ঞাপনটি দেখা যায় ভারতবর্ষে
অনলাইন ডেস্ক
বিশ্বের প্রথম বিজ্ঞাপনটি দেখা যায় ভারতবর্ষে
প্রতীকী ছবি

কোনো পণ্য ভোক্তাদের কাছে পরিচিত করে তুলতে কিংবা পণ্যের বিক্রি বাড়াতে এখন বিজ্ঞাপনের কোনো বিকল্প নেই। এজন্য কোম্পানি কাগজে, টিভিতে দেদার বিজ্ঞাপন প্রচার করে চলেছে। এমনকি বাড়িতে বিবাহযোগ্য মেয়ে আছে, সুপাত্র পেতে মেয়ের গুণাবলী উল্লেখ করে বিজ্ঞাপন কিংবা ছেলের টিউটর পেতেও এখন সেই ব্যবস্থা। তবে এই যে এত বিজ্ঞাপনের বহর, এর সূচনা হয়েছিল অনেক আগে। তাও আবার আমেরিকা নয়, ইংল্যান্ড নয়, এই ভারতীয় উপমহাদেশে। হ্যাঁ, বিশ্বের প্রথম বিজ্ঞাপন দেখা গিয়েছিল ভারতীয় উপমহাদেশে। ভারতের একটি সংবাদপত্রের দাবি, গুপ্ত বংশীয় রাজা কুমার গুপ্তের সময়ে বিশ্বের প্রথম বিজ্ঞাপনটি প্রকাশ করা হয়েছিল।

তবে, বিজ্ঞাপনটি কোনো পত্রিকায় প্রকাশিত হয়নি। ওই সময়ে নির্মিত একটি মন্দিরের গায়ে সেই বিজ্ঞাপনটি লক্ষ্য করা যায়। প্রায় ১৫০০ বছরেরও বেশি সময় আগে পৃথিবীর আর কোথাও সম্ভবত এই ধরনের বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন দেখা যায়নি। আসলে ঘটনাটা হল, দক্ষিণ গুজরাটের কয়েকজন ব্যবসায়ী মিলে সে সময় রেশমবস্ত্র বয়নকারী ব্যবসায়ী সংঘ গঠন করেছিলেন। এবং এই ব্যবসায়ী সংগঠন তাদের ব্যবসার পরিধি মধ্যপ্রদেশের মান্দাসোর শহর পর্যন্ত বিস্তৃত করেছিলেন। এই বিজ্ঞাপনটি তার প্রমাণ।

মান্দাসোরের তখনকার নাম ছিল দশপুর। এই ব্যবসায়ীর দল কুমারগুপ্তের রাজ্যে একটি সূর্যমন্দির নির্মাণ করে, তাতে কৌশলে লিখে দিয়েছিলেন তাদের পণ্যের বিবরণ। সংস্কৃত সেই শ্লোকে যথারীতি প্রথমে সম্রাটের বন্দনা, তারপর স্থানীয়–‌শাসকের স্তুতি, তারপর শহরের সমৃদ্ধি কামনা। সব শেষে সহজ–‌সরল ভাষায় বিজ্ঞাপনটি—

‘‌তারুক্য কান্যু পচিতো পি সুবর্ণহার
তাম্বুল পুষ্প বিধিনা অমল ক্রোপি।
নারীজনঃ প্রিয় মুপৈতি ন তাবদেস্যা
যাবন্ন পট্টময় বস্ত্র যুগানি নিধত্তে। ’‌‌

অর্থাৎ, শরীরে যৌবন যতই ফেটে পড়ুক, সৌন্দর্য যতই ছড়িয়ে পড়ুক সারা অঙ্গে, দেহ যতই চিকন হোক, আরাধিকা যতই সুগন্ধ মাখুন না কেন, যতই তিনি ‘‌স্নো–‌ক্রিম’‌ মাখুন, ঠোঁট যতই লিপস্টিক (‌তাম্বুল)‌ রঞ্জিত হোক, ফুলে সজ্জিত থাকুক বেণী, বুদ্ধিমতী নারী ততক্ষণ প্রিয়তমের ঘনিষ্ঠ হতে পারবেন না, যতক্ষণ না তিনি আমাদের তৈরি রেশমি বস্ত পরিধান না করছেন, প্রিয়তম তাকে গ্রহণই করবেন না। ‌‌


বিডি-প্রতিদিন/১৮ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow