Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:১৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:৪৪
ফুচকার পানিতে অ্যাসিড মিশিয়ে জেলে ফুচকাওয়ালা!
অনলাইন ডেস্ক
ফুচকার পানিতে অ্যাসিড মিশিয়ে জেলে ফুচকাওয়ালা!

অতি চেনা স্বাদের ফুচকাতেও যদি ভেজাল মেশে, তখন কেমন লাগে! আর ভেজাল যদি হয় বাথরুম পরিষ্কার করার কোন তরল? শুনতে অবাক লাগলেও এই ঘটনাই ঘটেছে ভারতের গুজরাটের অহমেদাবাদে। গত শনিবার ফুচকাতে বাথরুম পরিষ্কার করার তরল মেশানোর অভিযোগে লাল দরওয়াজা এলাকার এক ফুচকাওয়ালাকে ছ'মাসের জেলের নির্দেশ দিল দেশটির আদালত।

 

জানা যায়, ঘটনার সূত্রপাত ২০০৯-এ। ফুচকায় ভেজাল মেশানোর অভিযোগে ওই ফুচকাওয়ালা চেতন নানজি মারভাদির বিরুদ্ধে বিশেষ আদালতে মামলা দায়ের করে আহমেদাবাদ মিউনিসিপাল কর্পোরেশেন। তার আগে থেকেই লাল দরওয়াজা এলাকার বিভিন্ন বাসিন্দাদের থেকে কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ লাগাতার অভিযোগ পাচ্ছিলেন। বাসিন্দাদের দাবি ছিল, ফুচকার জলে বিশেষ কিছু মিশিয়ে দেন চেতন। অভিযোগ পাওয়ার পর ওই জল ফুড টেস্টিং ল্যাবোরেটরিতে পাঠায় কর্পোরেশন। তাদের রিপোর্টে দেখা যায়, ফুচকার জলে মেশানো রয়েছে বাথরুম পরিষ্কার করার অক্সালিক অ্যাসিড। তার পরই তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়। চেতন ফুচকা বিক্রির পর অবশিষ্ট পানি রাস্তায় ফেলে নোংরাও করতেন বলে অভিযোগ ছিল এলাকাবাসীর।

সাত বছর মামলা চলার পর গত শনিবার চেতনের সাজা ঘোষণা করে আদালত। এই সাত বছরে বারবার আদালতে চেতন নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেছিলেন। তার বিরুদ্ধে কোন প্রমাণও নেই বলে দাবি ছিল তার। কিন্তু আইনজীবি মনোজ খান্ডার আদালতে জানান, চেতন যেটা করেছে সেটা অপরাধ। অনেক মানুষ এর সঙ্গে জড়িত ছিল। সবচেয়ে বড় কথা গোটা বিষয়ে সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি প্রশ্নের মুখে পড়েছিল। সূত্র: আনন্দবাজার।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

up-arrow