Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে আরও ৩ দিন
  • বিচারবর্হিভূত হত্যার মাধ্যমে অপরাধ দমন সম্ভব নয়: বিএনপি
  • নাজিমের পরিবারকে কেন কোটি টাকা দেয়া হবে না : হাইকোর্ট
  • খালেদের অভ্যুত্থানের ডাক, যুবরাজ সালমানের নীরবতা নিয়ে বাড়ছে সন্দেহ!
  • ইকার্দিকে বাদ দিয়ে আর্জেন্টিনার চূড়ান্ত দল ঘোষণা
  • রাজীবের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আদেশ স্থগিত, তদন্তের নির্দেশ
  • ৯ জেলায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ১১
  • কক্ষপথে পৌঁছেছে বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১
প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০১:৫৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:৩৯
ছাত্রদের যৌন হেনস্তার পর ভিডিও করে রাখতো এই শিক্ষক!
অনলাইন ডেস্ক
ছাত্রদের যৌন হেনস্তার পর ভিডিও করে রাখতো এই শিক্ষক!

প্রায় এক দশক ধরে ছাত্রদের যৌন হেনস্তা, ধর্ষণ ও হুমকি দিয়ে যাচ্ছিল বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক। অবশেষে ফাঁস হল তার সেই কীর্তি। এরপর পুলিশ তাকে আটক করে। আপাতত তার ঠাঁই হয়েছে কারাগারে। ভারতের রাজস্থানের রামগঞ্জে এ ঘটনা ঘটে। ওই শিক্ষকের নাম রামিজ। সম্প্রতি এক ছাত্রের মা রামগঞ্জ থানায় জানান, তার ২০ বছরের ছেলেকে গত ছ’বছরে ধরে ধর্ষণ করে চলেছে রামিজ। এরপরই হাতেনাতে ধরা হয় অভিযুক্তকে।

অভিযোগকারী জানান, “আমার ছেলের তখন ১৪ বছর বয়স। ওকে হেনস্তা করে এবং ভয় দেখায় কেউ জানতে পারলে পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেবে। আমার ছেলে ধীরে ধীরে ট্রমায় চলে যায়।” রামগঞ্জ থানার পুলিশ জানিয়েছে, জয়পুরের রেহমানি স্কুলে পড়ানোর পাশাপাশি প্রাইভেট টিউশনও পড়াতো রামিজ। অল্পবয়সী ছেলেদের যৌনহেনস্তা করে তার ভিডিও ক্লিপিংও তৈরি করত ওই শিক্ষক। পরে ছাত্রদের ভয় দেখিয়ে টাকাও নিত। বিষয়টি নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে তারা অভিযুক্তকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করে। কিন্তু কেন স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি পুলিশকে জানায়নি তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

ইতিমধ্যেই রামিজের কম্পিউটার থেকে যৌনহেনস্তার ৫০টি ক্লিপিং উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, গত ১০ বছরে প্রায় ২০০ শিশুকে ধর্ষণ করেছে রামিজ। পুলিশের জেরার মুখে রামিজ কৃতকর্মের কথা স্বীকার করেছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। পুলিশের অনুমান, শুধু ছাত্ররাই নয়, রামিজের পাশবিক অত্যাচারের শিকার ছাত্রীরাও। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বিডি-প্রতিদিন/১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow