Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১২:১৯ অনলাইন ভার্সন
বিধবা হয়ে কপালে টিপ পরায় পেনশন পেলেন না বৃদ্ধা
অনলাইন ডেস্ক
বিধবা হয়ে কপালে টিপ পরায় পেনশন পেলেন না বৃদ্ধা
প্রতীকী ছবি
bd-pratidin

৭৭ বছরের এক বৃদ্ধাকে পেনশন দেননি সরকারি কর্মকর্তারা। বিধবা হয়েও কপালে টিপ পরায় তার সঙ্গে এ ব্যবহার করা হয়।

ভারতের চেন্নাইয়ের ওই নারী নিজের ছেলে ও পুত্রবধূর সঙ্গে মৃত স্বামীর পেনশন তুলতে যান। কিন্তু সরকারি কর্মকর্তারা তাকে অপমান করে পেনশন দিতে অস্বীকার করেন। এমনকি এ কথাও বলেন, বিধবা হয়ে তিনি কী করে মাথায় টিপ পরলেন?

ওই নারীর স্বামী পোর্ট ট্রাস্টের ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল দফতরে কাজ করতেন। গত মার্চে ৮২ বছর বয়সে তিনি মারা যান। সরকারি আইন অনুযায়ী স্বামীর পেনশনের ৭০ শতাংশ টাকা পাবেন বিধবা।

স্বামীর মৃত্যুর পর পোর্ট ট্রাস্টের ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল দফতর বিধবাকে দ্রুত পেনশনসংক্রান্ত সব কাজ সম্পন্ন করতে চাপ দেয়।

তখন বৃদ্ধা তার ছেলে ও পুত্রবধূকে নিয়ে দফতরে যান। কিন্তু সেখানে যাওয়ার পর কর্মকর্তারা তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন এবং পেনশন দিতে অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে বৃদ্ধার পুত্রবধূ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা যখন সংশ্লিষ্ট দফতরে যাই, তখন পেনশন বিভাগের কর্মকর্তারা ঘুমাচ্ছিলেন। এর পর আমরা যখন ওই কর্মকর্তাকে পেনশনের ফর্ম এবং অন্য দরকারি তথ্য দিই, তখন তিনি আমার শাশুড়ির চার মাস আগে তোলা একটি ফটো প্রথমে মনোযোগ দিয়ে দেখেন। ফটো দেখে তিনি বলেন, বিধবা মহিলা টিপ কী করে পরতে পারেন? এর পর ওই কর্মকর্তা পেনশন দিতে অস্বীকার করেন।’
পেনশন বিভাগের কর্মকর্তার কাছে এভাবে অপদস্থ হওয়ার পর ওই নারী বাড়ি ফিরে যান। পরের দিন নতুন ছবি তুলে তিনি ওই কর্মকর্তাকে দেন।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow