Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৪ জুন, ২০১৬ ১৭:৩৭
গ্যাসের অভাবে চালু হচ্ছে না ১ হাজার শিল্প প্রতিষ্ঠান
নিজস্ব প্রতিবেদক
গ্যাসের অভাবে চালু হচ্ছে না ১ হাজার শিল্প প্রতিষ্ঠান
ফাইল ছবি

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, গ্যাসের অভাবে চালু হচ্ছে না প্রায় ১ হাজার শিল্প প্রতিষ্ঠান। তবে গ্যাস সংযোগ পাওয়া সকল কারখানাতেই পর্যাপ্ত গ্যাসের সরবরাহ রয়েছে। অর্থাৎ কোন শিল্প কলকারখানাই গ্যাসের অভাবে বন্ধ নেই।

জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে মঙ্গলবারের বৈঠকে একেএম শাহজাহান কামালের (লক্ষ্মীপুর-৩ ) টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য সংসদকে জানান। তিনি বলেন, শিল্প কলকারখানার উৎপাদনের চাকা সচল রাখাসহ নতুন নতুন কলকারখানা প্রতিষ্ঠার সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে ৫শ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের সমতুল্য এলএনজি আমদানির প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ২০১৮ সালের প্রথমদিকে এলএনজি আমদানি সম্ভব হবে।

একই  সদস্যের অপর প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী জানান, বিদ্যমান সিএনজি স্টেশনগুলো এখনই বন্ধ করার বিষয়ে আপাতত সরকারের কোন পরিকল্পনা নেই। গ্যাস সরবরাহ অপর্যাপ্ত থাকায় বর্তমানে নতুন কোন সিএনজি স্ট্রেশনে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে না।

গ্যাস সংযোগ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে গ্যাসের মজুদ, চাহিদা ও সরবরাহ পরিস্থিতি বিবেচনায় অন্যান্য খাতে গ্যাস সংযোগ বন্ধ রয়েছে। তবে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টার নেতৃত্বে গঠিত কমিটির মাধ্যমে শিল্পখাতে সীমিত হারে গ্যাস সংযোগ দেয়া হচ্ছে। এছাড়া শিল্পখাতে অগ্রাধিকার দিয়ে সরকার ঘোষিত বিশেষ ইকোনমিক জোনে গ্যাস সরবরাহের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
 
পাতাল বিদ্যুৎ লাইন হবে

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, দেশে পাতাল বিদ্যুৎ লাইন স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে । প্রথমে পরীক্ষামূলকভাবে এটা করা হবে সিলেটে। এজন্য পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট আন্ডার সিলেট ডিভিশন নামে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে গতকালের বৈঠকে  সরকার দলীয় মহিলা এমপি বেগম ফজিলাতুন নেসা বাপ্পীর টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী সংসদকে এ তথ্য জানান। তিনি আরও জানান, সিলেট মহানগরীর উপশহর এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে পাতাল বিদুৎ লাইন স্থাপনের প্রকল্পটি গত ৩রা মে একনেকে অনুমোদিত হয়েছে। এর প্রাক্কলিত বাজেট ১৮৯০ দশমিক ৮৫ কোটি টাকা। প্রকল্পের বাস্তবায়নকাল ৩ বছর। এ প্রকল্প সফল হলে পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য স্থানেও পাতাল বিদ্যুৎ লাইন স্থাপন করার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

 

বিডি-প্রতিদিন/ ১৪ জুন, ২০১৬/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow