Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:৪৮
ফারুক হত্যায় এমপি রানার দুই সহযোগী কারাগারে
নিজস্ব প্রতিবেদক, টাঙ্গাইল:
ফারুক হত্যায় এমপি রানার দুই সহযোগী কারাগারে

টাঙ্গাইলে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত পলাতক আসামি সাবেক পৌর কাউন্সিলর মাসুদুর রহমান মাসুদ ও নাসিরুদ্দিন নুরু আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। শনিবার সকালে টাঙ্গাইল অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন তারা। পরে উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

টাঙ্গাইল জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা অশোক কুমার সিংহ জানান, ফারুক হত্যা মামলায় অভিযোগভুক্ত পলাতক  আসামিদের মধ্যে মাসুদ ও নুরু অন্যতম। আজ সকালে তারা দু'জন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তা নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

এর আগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর মামলার প্রধান আসামি টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা একই আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। বর্তমানে তিনি কাশিমপুর-১ কারাগারে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি রাতে শহরের কলেজ পাড়ায় নিজ বাসভবনের সামনে থেকে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহম্মেদের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর নিহত ফারুর আহম্মদের স্ত্রী নাহার আহম্মেদ বাদি হয়ে টাঙ্গাইল মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

পরে ৩ ফেব্রুয়ারি ফারুক আহম্মদ হত্যার অভিযোগে টাঙ্গাইলের-৩ (ঘাটাইল) আসনের সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা ও তার তিনভাই টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র শহিদুর রহমান খান মুক্তি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পা ও পরিবহন ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকনসহ ১৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়। তাদের মধ্যে ৪ জন আগেই গ্রেফতার হয়ে কারাগারে থাকায় ৬ এপ্রিল আদালত মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করে আমানুরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow