Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:৫১ অনলাইন ভার্সন
পাসপোর্ট সপ্তাহ-২০১৭ শুরু
পাসপোর্ট অধিদপ্তরের শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা নির্বাচিত হলেন আজিজুল ইসলাম
নিজস্ব প্রতিবেদক
পাসপোর্ট অধিদপ্তরের শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা নির্বাচিত হলেন আজিজুল ইসলাম

‘পাসপোর্ট নাগরিক অধিকার, নিঃস্বার্থ সেবাই অঙ্গীকার’ স্লোগানে আজ ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে রাজধানীসহ সারাদেশে শুরু হয়েছে ‘পাসপোর্ট সপ্তাহ-২০১৭’।   আগামী ৩ মার্চ পর্যন্ত সাত দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মাধ্যমে পালন করা হবে এই সপ্তাহ।

আজ শনিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল পাসপোর্ট সপ্তাহ উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি নিঃস্বার্থভাবে ও যত্নসহকারে দ্রুত পাসপোর্ট সেবা প্রদানে অনবদ্য ভূমিকা রাখায় উত্তরা পাসপোর্ট কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সহকারী পরিচালক আজিজুল ইসলামের হাতে বহির্গমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের ২০১৬ সালের শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তার পুরস্কার তুলে দেন।

গত বছরের ২৮ এপ্রিল দেশে প্রথম পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শনিবার দ্বিতীয়বারের মতো পাসপোর্ট সপ্তাহ উদযান শুরু করেছে বহির্গমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর। এ সপ্তাহে পাসপোর্টপ্রত্যাশীদের দ্রুত সেবা প্রদান করার পাশাপাশি কোনো পেন্ডিং কাজ থাকলে তাও দ্রুত সম্পাদন করা হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পাসপোর্ট সপ্তাহ ঘিরে পুরো বছরের কাজের গতি আনয়ন এবং পাসপোর্টপ্রত্যাশীদের দ্রুত সময় পাসপোর্ট প্রদানের জন্য সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। এবং শ্রেষ্ঠ সেবা প্রদানের জন্য পুরস্কৃত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। সেই সুবাদে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আগের তুলনায় সেবা প্রদানে অনেক বেশি আন্তরিক হয়ে উঠেছেন। আজ পাসপোর্ট সপ্তাহের প্রথম দিনে পাসপোর্ট অফিসের ৩২ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে প্রদান করা হয় ডিজি অ্যাওয়ার্ড।

পাশাপাশি ডিজিটাল উদ্ভাবনী শ্রেষ্ঠ ই-সেবা প্রদানকারী ১৯টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।

বহির্গমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাসুদ রেজওয়ান এ বিষয়ে বলেন, গত বছরের তুলনায় এবার আরও ভালো সেবা দেওয়ার জন্য দ্বিতীয়বারের মতো পাসপোর্ট সপ্তাহ উদযাপন করা হচ্ছে। পাসপোর্ট সপ্তাহ চালু করার ফলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাজে গতি এসেছে। বেড়েছে জবাবদিহিতাও। ২০১৬ সালে শ্রেষ্ঠ সেবা প্রদান করায় ৩২ কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। এতে করে অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে দ্রুত সেবা দেওয়ার মানসিকতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। পাশাপাশি অধিদপ্তর কারো বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের প্রমাণ পেলে ছাড় দেওয়া হবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের শ্রেষ্ট কর্মকর্তা নির্বাচিত হওয়ায় প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সহকারী পরিচালক আজিজুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি মাত্র। আজ সরকার আমাকে যে পুরস্কৃত করেছে তা আমার কর্মক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। তিনি বলেন, আমি যেখানে গেছি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি মানুষকে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে। আমার অফিসের আশপাশে কোন দালাল কখনো ভীড় করতে দেইনি। এছাড়া পাসপোর্ট নিয়ে যে কারও সমস্যা শোনার জন্য আমার কক্ষের দরজা সবসময় খোলা থাকে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে পাস করা আজিজুল ইসলাম গত বছর কর্মরত ছিলেন গোপালগঞ্জে। সেখানে তিনি গোপালগঞ্জের সবচেয়ে ডায়নামিক কর্মকর্তা হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেয়েছিলেন। সময়ের পালাক্রমে তিনি গোপালগঞ্জ ছেড়েছেন, তবে সেই সেবা আজও অব্যাহত রেখেছেন। আর তার স্বীকৃতিও পেলেন।

বিডি-প্রতিদিন/আহমেদ

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow