Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • চাটাইয়ে মুড়িয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান!
  • কেরানীগঞ্জে বাচ্চু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ৭ জনের যাবজ্জীবন
  • ৩ মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে খালেদার আবেদন
  • হালদা নদীর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ভাঙার নির্দেশ
  • আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা
  • কাদেরের বক্তব্যে একতরফা নির্বাচনের ইঙ্গিত: রিজভী
  • কলারোয়া সীমান্তে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ বাংলাদেশিকে ফেরত দিল বিএসএফ
  • বিএনপি নির্বাচনে না এলেও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে: কাদের
প্রকাশ : ৩ মার্চ, ২০১৭ ১৬:২৫ অনলাইন ভার্সন
'তৃণমূলে কর্মীদের সরাসরি বহিষ্কার নয়'
অনলাইন ডেস্ক
'তৃণমূলে কর্মীদের সরাসরি বহিষ্কার নয়'
ফাইল ছবি

শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে নেতা-কর্মীদের সরাসরি বহিষ্কার বা স্থানীয় কমিটি বিলুপ্ত করা থেকে জেলা, উপজেলা, মহানগর ও পৌর কমিটিকে বিরত থাকতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এটিকে সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত উল্লেখ করে গত বুধবার সারা দেশের সব ইউনিটকে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের।

আজ শুক্রবার ঢাকার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে মহিলা আওয়ামী লীগের এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান কাদের। তিনি বলেন, দলের কোনো শাখার কেউ অপরাধ বা শৃঙ্খলাবিরোধী কাজ করলেও তাকে সরাসরি বহিষ্কার করা যাবে না। বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ করতে হবে এবং কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে তা চূড়ান্ত হবে।

এছাড়া কোনো কমিটি হুট করে ভাঙ্গা যাবে না। এ ব্যাপারে সুপারিশ কেন্দ্রীয় কমিটির সংশ্লিষ্ট যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে জমা দিলে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা মতামতসহ তা কেন্দ্রীয় কমিটিতে উত্থাপন করবেন। যাচাই-বাছাই করে কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত বা বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করবে। 

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দ্বন্দ্বের প্রভাব নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে দলের দ্বন্দ্ব যেভাবে মেটানো হয়েছে, কুমিল্লাতেও সেভাবেই সমাধান করা হবে। 

খালেদা জিয়াকে ছাড়া দেশে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন মন্তব‌্যের জবাবে কাদের বলেন, সময় এবং স্রোত কারও জন্য অপেক্ষা করে না। তেমনি সংবিধান ও নির্বাচনও কারও জন্য অপেক্ষা করবে না। বিএনপি বর্জন করলেও ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন থেমে থাকেনি।

তিনি বলেন, আধুনিক একটা সাংগঠনিক প্রস্তুতি নিয়ে আমরা যেন নির্বাচনী লড়াইয়ে অংশ নিতে পারি- এমন পরিকল্পনা করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে আমাদের সব সহযোগী সংগঠনের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সম্মেলন করতে যাচ্ছি। এর মধ্যে শনিবার মহিলা আওয়ামী লীগ এবং ১১ মার্চ যুব মহিলা লীগের সম্মেলন হবে। এ বছরের মধ্যে সহযোগী সব সংগঠনের সম্মেলন শেষ করা হবে বলে জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।


বিডি প্রতিদিন/৩ মার্চ ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow