Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • সুন্দরবনের ৩ জলদস্যু বাহিনীর ৫৭ সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন
প্রকাশ : ২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৩৬ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৪০
তামাকজাত পণ্যে কর বৃদ্ধির দাবি
নিজস্ব প্রতিবেদক
তামাকজাত পণ্যে কর বৃদ্ধির দাবি

বাংলাদেশে প্রতি বছর ১ লাখ ৬২ হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে, শুধুমাত্র তামাকে ব্যবহারে সৃষ্ট রোগের চিকিৎসার জন্য। আর এখাতে ব্যয় হচ্ছে জিডিপির ১.৪ শতাংশ টাকা। কিন্তু আমাদের তামাক কর কাঠামো খুবই দুর্বল। তামাকের ওপর কর আরোপে কোম্পানির হস্তক্ষেপ প্রতিহত করে সঠিকভাবে কর আরোপ করতে পারলে তামাক খাত থেকে ১০০ বিলিয়ন টাকা আদায় সম্ভব। তাই তামাকজাত পণ্য উচ্চহারে কর আরোপ করে এসব পণ্য ব্যবহারে জনগণকে নিরুৎসাহিত করার দাবি জানানো হয়।

আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এসডিজি অর্জনে তামাকজাত দ্রব্যের উপর কর বৃদ্ধির গুরুত্ব শীর্ষক সেমিনারে এ দাবি জানানো হয়।সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. রুমানা হক।
ব্যুরো অব ইকোনোমিক রিসার্চ- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরাম এবং ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাব্লিউবিবি) ট্রাষ্ট এ সেমিনারের আয়োজন করে। 

সেমিনারে বক্তরা বলেন, তামাক কোন মৌলিক প্রয়োজনীয় দ্রব্য নয় বরং স্বাস্থ্যহানীকর বিলাসবহুল পণ্য এবং এটি একটি পণ্য যা তার ভোক্তার মৃত্যু ডেকে আনে। 

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি (নাটাব) সভাপতি ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট (বাটা) উপদেষ্টা মোজাফফর হোসেন পল্টু। স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বাজেট ও উন্নয়ন) মোহাম্মদ রূহুল কুদ্দুস, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডা. সৈয়দ মাহফুজুল হক, বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক ডা. গোলাম মহিউদ্দিন ফারুক, ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাব্লিউবিবি) ট্রাষ্টের পরিচালক গাউস পিয়ারী প্রমুখ সেমিনারে বক্তব্য রাখেন।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow