Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৫ আগস্ট, ২০১৮ ১২:২০ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৫ আগস্ট, ২০১৮ ১২:২২
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া এবং কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া
দুই নৌরুটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন, ঈদে চরম ভোগান্তির শঙ্কা
অনলাইন ডেস্ক
দুই নৌরুটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন, ঈদে চরম ভোগান্তির শঙ্কা
ফাইল ছবি
bd-pratidin

দেশের বহুল ব্যবহৃত দুটি নৌরুট হল কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার সঙ্গে সড়কপথে যোগাযোগ ব্যবস্থায় এই দুই নৌরুটই একমাত্র ভরসা। তবে বর্তমানে ব্যস্ততম এই দুটি রুটে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলাচলে বিঘ্নের সৃষ্টি হচ্ছে। 

এর মধ্যে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে পদ্মা নদীতে নাব্যতা সংকট। ফলে বড় ফেরিগুলো চলাচল করতে পারছে না। আর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে প্রবল স্রোতের কারণে ফেরিগুলোকে চলাচল করতে হচ্ছে নির্দিষ্ট চ্যানেল ছেড়ে অনেকটা ঘুরে। ফলে যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন পারাপারে অনেকটা বেগ পেতে হচ্ছে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষের। এতে ঘাটে ক্রমেই যানবাহনের সারি দীর্ঘ হচ্ছে। এদিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ঈদে ঘরমুখো মানুষকে পরতে হবে চরম ভোগান্তিতে। 

আমাদের মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, গত কয়েক দিন ধরে পদ্মায় পানি বৃদ্ধি ও প্রবল স্রোত অব্যাহত থাকার কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটে ফেরি চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। নদীতে প্রচণ্ড স্রোতের কারণে ফেরি চলাচলে সময় বেশি লাগায় উভয় ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এতে উভয় ঘাট এলাকায় এ পথে চলাচলাকারী সাধারণ যাত্রী ও চালকদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ১৯টি ফেরির মধ্যে বর্তমানে ছোট-বড় ১৬টি ফেরি চলাচল করছে। 

তবে যাত্রীদের দুর্ভোগের বিষয়টি বিবেচনা করে যাত্রীবাহী বাস ও ব্যক্তিগত ছোট গাড়ি এ নৌরুটে পারাপার করা হচ্ছে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে। একই সঙ্গে নৌরুট পারাপারে অগ্রাধিকার পাচ্ছে কাঁচামাল, পচনশীল ও জরুরি পণ্যসামগ্রী বহনকারী ট্রাক। এতে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক চালক ও শ্রমিকরা। আজ সকাল সোয়া ৯টা পর্যন্ত পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট পারাপারের অপেক্ষায় প্রায় চার শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্ট ফেরিঘাটের কর্মকর্তারা।

অন্যদিকে শিবচরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌ রুটে ফেরি চলছে থেমে থেমে। আমাদের মাদারীপুর প্রতিনিধি জানান, এ রুটে ১৮টি ফেরির মধ্যে ছোট ছোট ৬টি কে-টাইপ ফেরি চলাচল করছে। ফলে সীমিতসংখ্যক পরিবহন নিয়ে ধীরগতিতে ফেরি চলায় ঘাটে অপেক্ষমাণ গাড়ির বহর ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। এ ছাড়া পদ্মার লৌহজং চ্যানেলে নাব্যতা সংকট তীব্র আকার ধারণ করায় আট দিন ধরে রো রো ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে বিআইডাব্লিউটিসি। বর্তমানে ঘাটে প্রায় পাঁচ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। 


বিডি প্রতিদিন/১৫ আগষ্ট ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow