Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৩:০৪ অনলাইন ভার্সন
মার্কিন ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগে সব সুবিধা দেব: প্রধানমন্ত্রী
রুহুল আমিন রাসেল ও কাজী শাহেদ, নিউইর্য়ক থেকে:
মার্কিন ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগে সব সুবিধা দেব: প্রধানমন্ত্রী
ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ীদের সব ধরনের সুবিধা ও সহযোগিতা নিশ্চিত করবো। তিনি মার্কিন ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, চর্তুথ শিল্প বিপ্লব সামনে রেখে আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ আছে। দ্বি-পাক্ষিক মুনফার জন্য আপনাদের ব্যবসা, প্রযুক্তি এবং উদ্যোম নিয়ে আমি আমার বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

সোমবার নিউইয়র্কেও গ্রান্ড হায়াত হোটেলে ইউএস চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আমি আনন্দিত এই জন্য যে- যুক্তরাষ্ট্র একক দেশ হিসেবে আমাদের বাণিজ্যের বড় অংশীদার। আমাদের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সাড়ে ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বিগত ২০১৬-১৭ অর্থবছর থেকে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে দ্বিতীয় বিনিয়োগ অংশীদার। বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগের পরিমাণ ৩ বিলিয়ন ডলার।

বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত বদলে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বের তৃতীয় বড় সবজি উৎপাদনকারি দেশ। চাল উৎপাদনে চতুর্থ। মাছ চাষে তৃতীয়। গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তৈরি পোশাক পণ্য রপ্তানিতে ৩০ দশমিক ৬১ বিলিয়ন বৈদেশিক মুদ্রা আয় করেছে বাংলাদেশ। আশা করছি- খুব শিগগিরই পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বে এক নম্বর হবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশে বিনিয়োগে মুনফার উচ্চ হার থাকার বিষয়টি মার্কিন ব্যবসায়ীদের জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিদেশি বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশের অবস্থান ও আঞ্চলিক যোগাযোগ খুবই সহায়ক। আমাদের সমুদ্র অর্থনীতির জন্য নতুন দিগন্ত উম্মোচন করতে চাই। নতুন বিনিয়োগ ও শিল্পায়নের জন্য আমরা একশত সরকারি ও বেসরকারি মালিকানাধীন বিশেষ অর্থনৈতিকক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করছি। ইতোমধ্যে দুটি তথ্য ও প্রযুক্তি পার্ক তৈরি হয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের বিনিয়োগ নীতি সবচেয়ে উদার। এখানে বিদেশি বিনিয়োগের আইনি নিরাপত্তা, কর অবকাশ সুবিধা, শিল্পের কাঁচামাল ও মেশিনারিজ আমাদানিতে শুল্ক সুবিধা আছে।

বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগের সুবিধার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের আছে প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ কর্মক্ষম জনশক্তি। শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধার বাজার।  
 

বিডি প্রতিদিন/২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow