Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ২২:২৮ অনলাইন ভার্সন
ছাত্রলীগের সহযোগিতায় স্বাভাবিক জীবনে সেই পথশিশু
নিজস্ব প্রতিবেদক
ছাত্রলীগের সহযোগিতায় স্বাভাবিক জীবনে সেই পথশিশু

বাংলাদেশ ছাত্রলীগে প্রচেষ্টা এবং সার্বিক সহযোগিতায় পথশিশু মনির ফিরে পেয়েছে তার স্বাভাবিক জীবন। রবিবার ফরিদপুর মেডিকেল কলেক কর্তৃপক্ষ সুস্থ ঘোষণা করে তাকে রিলিজ দেয়।

এর আগে ২০ সেপ্টেম্বর রাজবাড়িতে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় পিতৃহীন মনির মারাত্মক আহত হয়।প্রাথমিকভাবে তাকে রাজবাড়ি সদর হাসপাতাল, পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

মনিরের বাবা মারা যায় দুই বছর বয়সে।এরপর তার মা অন্যত্র বিয়ে করেন। মনিরের আশ্রয় হয় রাজবাড়ি রেলের বস্তিতে। এরপর সড়ক দুর্ঘটনায় তার পায়ের ফিমারে ফাটল দেখা দেয়, ইনফেকশন শুরু হয় ঘায়ে। কিন্তু চিকিৎসা খরচ সে কোথা থেকে জোগাড় করবে? এমতাবস্থায় তাকে নিয়ে একটি জাতীয় পত্রিকা খবর প্রকাশ হলে বিষয়টি নজরে আসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক সহ-সভাপতি শেখ স্বাধীন মো. শাহেদের।

তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নির্দেশে তাৎক্ষণিকভাবে ছুটে যান ফরিদপুর মেডিকেলে। এরপর ফরিদপুর মেডিকেলের রেজিস্ট্রার মুহিদুল ইসলাম নাদিমের সাথে আলোচনা করেন। এবং তিনি মনিরের চিকিৎসার যাবতীয় ব্যয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বহন করবে বলে রেজিস্ট্রারকে নিশ্চয়তা প্রদান করেন। এ বিষয়ে গত ৬ অক্টোবর বাংলাদেশ প্রতিদিনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

পরবর্তীতে গত ১১ অক্টোবর মনিরের পায়ে অপারেশন করা হয়। সফল অপারেশনের মাধ্যমে মনির বিকলাঙ্গ হয়ে যাবার ভয় থেকে মুক্তি পায়। রবিবার দায়িত্বরত ডাক্টাররা তাকে সম্পূর্ণ সুস্থ বলে ঘোষণা করেন। 

নিজের পায়ে হাঁটার আনন্দে মনির খুব খুশি। 'বাংলাদেশ প্রতিদিন'কে মনির জানায়, 'এখন থেকে সে আবার ফুটবল খেলবে। ভাইয়েরা আমারে স্কুলেও ভর্তি করাই দিবি কইছে।' 

মনিরের মা প্রাণ ভরে ছাত্রলীগের সদস্যদের দোয়া করেন। তিনি বলেন, 'স্যার আল্লায় আপনেগের বাচাই রাহুক। আপনেগের জন্যি আমার ছাওয়ালডা হাটপার পারতেছে। স্যার কুনদিন নৌকা ছাড়া, শেখ হাসিনা ছাড়া অন্য কাউরে ভোট দিব না' আনন্দাশ্রু নিয়ে বলছিলেন মনিরের মা।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের মিনহাজ জানান, গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের নির্দেশে শেখ স্বাধীন শাহেদ ভাই ক্যাম্পাসে আসার শুরু থেকে আমরা তাকে সাথে নিয়ে মনিরের জন্য যা যা করা লাগে করেছি। ভবিষ্যতেও ফমেক ছাত্রলীগ মানবতার সেবায় অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।

ফমেক রেজিস্ট্রার মুহিবুল ইসলাম নাদিম বলেন, শুরুর দিকে মনিরের ইনফেকশনে আমরা বেশ উদ্বিগ্ন ছিলাম। কারণ ওর অপারেশনটা করা জরুরি ছিল, কিন্তু সেটা ছিল বেশ ব্যয়বহুল। ছাত্রলীগের ছেলেরা এগিয়ে আসাতে কাজটা করা সম্ভব হল। মনিরকে আজ আমরা রিলিজ করে দিয়েছি। আগামী কয়েকদিন ওকে ক্র‍্যাচে হাটটে হবে।

এ প্রসঙ্গে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী জানান, বাংলাদেশের যেই প্রান্তেই মানবতা সংশয়ের মুখোমুখি হবে, সেখানেই আলোকবর্তিকা হাতে নিয়ে পাশে দাঁড়াবে ছাত্রলীগ। নৌকার জন্য গণজোয়ার আনতে পজিটিভ ধারা এমন মানবিক কাজগুলো করে যেতে ছাত্রলীগ বদ্ধপরিকর।

বিডি প্রতিদিন/২১ অক্টোবর ২০১৮/আরাফাত

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow