Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১০:৪৬

মাতৃভাষায় বই থাকলেও শিক্ষক নেই সাঁওতালদের

অনলাইন ডেস্ক

মাতৃভাষায় বই থাকলেও শিক্ষক নেই সাঁওতালদের

সাঁওতাল বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ আদিবাসী জনগোষ্ঠী। অথচ সারা বিশ্বে অস্তিত্বের সংকটে আদিবাসীরা। তাই তাদের ভাষা-সংস্কৃতি রক্ষায় ২০১৯ সালকে আন্তর্জাতিক আদিবাসী ভাষা বর্ষ ঘোষণা করেছে জাতিসংঘ। 

এরই ধারাবাহিকতায় মূলধারার সঙ্গে মিশে যেতে যেতে নিজের ভাষা-সংস্কৃতিকে পরিবারের ছোট্ট পরিমণ্ডলে হলেও পুষে রাখার সুপ্ত বাসনা সাঁওতাল পল্লীর শিক্ষার্থীদের। প্রধান প্রধান নৃগোষ্ঠীর ভাষার পাঠ্যবই প্রণয়ন করে দেয়া হয়েছে তাদের শিক্ষার্থীদের হাতে। কিন্তু সেসব ভাষার পাঠ দানে নেই কোনো শিক্ষক।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য মতে, পাঁচ দশক আগেও ৩৭টি ক্ষুদ্র-জাতিগোষ্ঠীর ৬০ হাজারের বেশি পরিবারের বসবাস ছিল বৃহত্তর রংপুর-দিনাজপুর অঞ্চলে। নানা সংকটে, আগ্রাসনে ক্রমেই বিলুপ্ত হচ্ছে নৃগোষ্ঠীর সম্প্রদায়। এখন এ অঞ্চলে সংখ্যা নেমে এসেছে কুড়ি হাজারের নিচে। বিলুপ্ত হয়েছে ৮টি ক্ষুদ্র জাতি-গোষ্ঠী।

বাঙালির একুশে এখন বিশ্বজনীন। তাই সকল বিপন্ন মাতৃভাষা রক্ষার দায় অনেকটা বাঙালিরও এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য