Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০
মোটরসাইকেলে ৩ জন চড়া যাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, এখন থেকে মোটরসাইকেলে দুজনের বেশি তিনজন চড়া যাবে না। এ ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনজন চড়লে বাধা দেওয়া হবে। রবিবার সকালে চট্টগ্রামে একটি মোটরসাইকেলের তিন আরোহী এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুকে হত্যা করার পর এ নির্দেশনা দেওয়া হলো। এ বিষয়ে গতকাল সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, মোটরসাইকেলে চলার ক্ষেত্রে আমরা কতগুলো বিধিনিষেধ আরোপ করতে যাচ্ছি। তিনজন আরোহী যে মোটরসাইকেলে চলবে তাকে আমরা বাধা দেব, ধরব, চেক করব। এখন থেকে এক মোটরসাইকেলে যাতে তিনজন চলাফেরা করতে না পারেন- তা নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেকোনো পদক্ষেপ নেবে। এর কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, যতগুলো ঘটনা ঘটছে- তা এই মোটরসাইকেলে করেই হচ্ছে। আমরা অগ্নিসন্ত্রাসের সময় বলেছিলাম, দুই জনও কোনো মোটরসাইকেলে উঠতে পারবে না। তখন অগ্নিসন্ত্রাস কমেছিল। এখন আমরা আবার মোটরসাইকেলের উপর কড়াকড়ি আরোপ করছি।

 

এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যা ঘটনা সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যে মোটরসাইকেলে করে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে, সেটি আমরা এরই মধ্যে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। কার নামে মোটরসাইকেলটি নিবন্ধন আছে, কারা এটি ব্যবহার করেছেন- সবই পেয়ে যাব। গোয়েন্দা বাহিনী এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা নিয়েছে। তিনি বলেন, পুলিশ পত্নী হত্যাকাণ্ডের ‘মোটিভ’ থেকে শুরু করে এর সঙ্গে জড়িত এবং পরিকল্পনাকারীদের বের করা হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, টার্গেট করে হত্যা করা হচ্ছে। পুলিশের মনোবল যাতে নষ্ট হয় সেজন্য জঙ্গিরা এ ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়েছে। এরসঙ্গে অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক ষড়ষন্ত্র আছে। আমরা হাতেনাতে দেখিয়েও দিয়েছি কারা ষড়যন্ত্র করছে। এগুলো বন্ধ করতে যা করা দরকার তা করছি। ‘টার্গেটেড কিলিং’ বন্ধ করতে গোয়েন্দাদের নজরদারি বাড়াতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন, এসব হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আন্তর্জাতিক গোয়েন্দা সংস্থা জড়িত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, পুলিশ কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশের বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে আইএসএর বিবৃতির বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি আইএসএর অস্তিত্বের কথা অস্বীকার করে বলেন, আইএসের কোনো প্রশ্নই নেই। আমাদের দেশে আইএস নেই। এটা বায়বীয়। এটা স্পষ্ট এবং পরিষ্কার যে এটা একটা ষড়যন্ত্র।




up-arrow