Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ জুন, ২০১৬ ০১:৩৭
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমপিদের সভাপতি পদ
রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি ১২ জুন
নিজস্ব প্রতিবেদক

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে সংসদ সদস্যদের দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপরে ১২ জুন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি হবে। গতকাল আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে কোনো স্থগিতাদেশ না দিয়ে বিষয়টি শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন।

রিটকারী আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন। এর আগে ১ জুন বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা-২০০৯ এর ৫(২) এবং ৫০ ধারাকে বাতিল ঘোষণা করে হাইকোর্ট। এর ফলে এ বিধান অনুযায়ী সংসদ সদস্যরা স্কুল-কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি হতে পারবেন না বলে সাংবাদিকদের জানান রিটকারী আইনজীবী। তবে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ইসরাত জাহান সাংবাদিকদের জানান, ম্যানেজিং কমিটিতে ইচ্ছাপোষণ করে সংসদ সদস্যদের সভাপতি হওয়ার বিধান এবং বিশেষ কমিটির বিধান সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক বলে ঘোষণা করেছে আদালত। ফলে সংসদ সদস্যরা এখন ইচ্ছে করলেই কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সভাপতি হতে পারবেন না। সভাপতি হতে হলে তাদেরকে নির্বাচনের মাধ্যমে আসতে হবে। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানগুলোর বিশেষ কমিটি করা যাবে না।

এর আগে ১৩ এপ্রিল একটি রিটের শুনানি শেষে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে সংসদ সদস্যদের দায়িত্ব পালন এবং নির্বাচন ছাড়া কমিটি গঠনকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট। আইনজীবী ইউনুস আলী সাংবাদিকদের জানান, রিটে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রবিধানমালা ২০০৯-এর ৫ ও ৫০ ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়। এর মধ্যে ৫(২) ধারা হচ্ছে এমপিদের সভাপতি পদ ও ৫০ ধারা হচ্ছে বিশেষ কমিটি গঠনের বিষয়ে। হাইকোর্টের রায়ে আদালত দুটি ধারা বাতিল করা হয়েছে।

ভিকারুননিসার বিশেষ কমিটি নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদনের শুনানি ১২ জুন

এদিকে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিচালনার জন্য গঠিত বিশেষ কমিটি অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও বিশেষ কমিটির আবেদনের ওপরে ১২ জুন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি হবে। গতকাল আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার এ দিন ধার্য করেন। এ বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রায় স্থগিত চেয়ে ভিকারুননিসা স্কুল ও বিশেষ কমিটি আপিল বিভাগে আবেদন করে। তবে চেম্বার বিচারপতি হাইকোর্টের রায়ে স্থগিতাদেশ না দিয়ে বিষয়টি শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। ১ জুন ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিচালনার জন্য গঠিত বিশেষ কমিটি অবৈধ ও বাতিল বলে ঘোষণা করে হাইকোর্ট। একটি রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জারি করা রুল অ্যাবসলিউট (যথাযথ) ঘোষণা করে ওই দিন হাইকোর্ট এ রায় দেয়। রিটকারী আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ সাংবাদিকদের জানান, হাইকোর্টের এই রায়ের ফলে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপির নেতৃত্বে ভিকারুননিসার বিশেষ কমিটি বাতিল হয়ে গেছে।

up-arrow