Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ১০ জুন, ২০১৬ ২৩:০৫
ঈদের পর ইউপির স্থগিত কেন্দ্রে পুনঃভোট
নিজস্ব প্রতিবেদক

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সহিংসতা, ব্যালট ছিনতাইসহ নানা অনিয়মের কারণে বন্ধ হওয়া ভোটকেন্দ্রে পুনঃ ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এবার ছয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে অনিয়মের কারণে ৩৪৬ ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে ইসি। আগামী ঈদের পরে এসব বন্ধ কেন্দ্রে পুনঃ ভোটগ্রহণ করার পরিকল্পনা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

ইসি সূত্র জানিয়েছে, ছয় ধাপে ৩৪৬ কেন্দ্রের ভোট স্থগিত রয়েছে। গত ৪ জুন শেষ ধাপের ভোট হলেও রমজানের কারণে সব স্থগিত ভোট পিছিয়ে দিয়েছে ইসি। এসব কেন্দ্রের পুনঃ ভোটগ্রহণ ঈদের পরে মধ্য জুলাইয়ের মধ্যে করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। ইসি কর্মকর্তারা জানান, স্থগিত কেন্দ্রের ফলাফল বাদে অন্যগুলোর গেজেট প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসি। এর আগে কোনো ইউপিতে একটি কেন্দ্র স্থগিত থাকলে পুনরায় ভোট না হওয়া পর্যন্ত ওই ইউপির গেজেটও স্থগিত থাকত। কিন্তু কমিশন স্থগিত কেন্দ্রের কারণে বাকিদের গেজেট আটকানোর পক্ষে নয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ বলেন, স্থগিত ভোটকেন্দ্র বাদে বাকি নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশ করা হবে। অনেক ইউপিতে দেখা গেছে, একটি কেন্দ্র স্থগিত থাকার কারণে একজন সাধারণ সদস্য-সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্বাচন করতে হবে। চেয়ারম্যান, আটজন সদস্য ও দুজন সাধারণ সদস্য নির্বাচিত হয়ে আছেন। কিন্তু ওই একটি কেন্দ্রের কারণে বাকি গেজেট আটকে থাকার কোনো কারণ নেই। এ জন্য এবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইসির তথ্য মতে, গত ২২ মার্চ প্রথম ধাপের ৭১২টি ইউপির নির্বাচনে কেন্দ্র দখল, ব্যালট বাক্স ও ব্যালট পেপার ছিনতাইসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ১৩ জেলার ৩০ উপজেলার মোট ৬৫টি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে কমিশন। ৩১ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ৬৩৯টি ইউপির মধ্যে গোলযোগের কারণে ৩৭টি ভোটকেন্দ্রে স্থগিত করা হয়। ২৩ এপ্রিল তৃতীয় ধাপের ৬১৫টি ইউপির মধ্যে ২৬ ভোটকেন্দ্র স্থগিত করা হয়।

চতুর্থ ধাপের ৭ মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ৫৩টি ভোটকেন্দ্র, পঞ্চম ধাপে ১২৩ ভোটকেন্দ্রে ও ষষ্ঠ ধাপে ৪২ ভোটকেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।




up-arrow