Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ জুন, ২০১৬ ২৩:৫৯
২০ কোম্পানির ওষুধ উৎপাদন বন্ধই থাকল
নিজস্ব প্রতিবেদক

মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনে ব্যর্থ হওয়ায় ২০টি কোম্পানিকে সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশ বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে করা আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে হাইকোর্টের জারি করা রুল ১৮ আগস্টের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডসহ চারটি ওষুধ কোম্পানি হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করে। আপিল বিভাগের আদেশের পর রিটের পক্ষের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, হাইকোর্টের আদেশে আপিল বিভাগ স্থগিতাদেশ দেয়নি। এর ফলে রুল নিষ্পত্তির আগ পর্যন্ত হাইকোর্টের আদেশের কার্যকারিতা বহাল থাকবে।

এর আগে ৭ জুন হাইকোর্ট একটি রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনে ব্যর্থ ২০টি কোম্পানিকে সাত দিনের মধ্যে সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেয়। একই সঙ্গে ১৪টি কোম্পানিকে ওই সময়ের মধ্যে অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদন বন্ধ করতে বলা হয়। হাইকোর্টের ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে ওষুধ কোম্পানির পক্ষে চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করা হলে আদালত ‘নো অর্ডার’ দিয়ে বিষয়টি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় বিষয়টি শুনানির জন্য আপিল বিভাগে আসে। আদালতে ওষুধ কোম্পানির পক্ষে আইনজীবী ফিদা এম কামাল, এ জে মোহাম্মদ আলী, রিটের পক্ষে আজমালুল হোসেন কিউসি ও মনজিল মোরসেদ শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন। 

হাইকোর্টের আদেশে এক্সিম ফার্মাসিউটিক্যাল, এভার্ট ফার্মা লিমিটেড, বিকল্প ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ডলফিন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ড্রাগল্যান্ড লিমিটেড, গ্লোব ল্যাবরেটরিজ (প্রাইভেট) লিমিটেড, জলপা ল্যাবরেটরিস লিমিটেড, কাফমা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ন্যাশনাল ড্রাগ ফার্মা লিমিটেড, নর্থ বেঙ্গল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, রিমো কেমিক্যালস লিমিটেড (ফার্মা ডিভিশন), রিড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্কাইল্যাব ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্পার্ক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্টার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, সুনিপুণ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, টুডে ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ট্রপিক্যাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড এবং ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে আদ-দ্বীন ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড, আলকাদ ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, বেলসেন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বেঙ্গল ড্রাগস অ্যান্ড কেমিক্যালস (ফার্মা) লিমিটেড, ব্রিস্টল ফার্মা লিমিটেড, ক্রিস্ট্যাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মিল্লাত ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, এমএসটি ফার্মা অ্যান্ড হেলকেয়ার লিমিটেড, অরবিট ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ফার্মিক ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, পনিক্স কেমিক্যাল ল্যাবরেটরি লিমিটেড, রাসা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ও সেভ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই ৩৪টি কোম্পানির অনুমোদন বাতিলে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়। রুলে ওই সব কোম্পানির লাইসেন্স ও অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদনের অনুমোদন কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না- তাও জানতে চাওয়া হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow