Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৮ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ জুন, ২০১৬ ২৩:৪৬
এসপির স্ত্রী খুন
তিন জঙ্গিকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে গ্রেফতার হওয়া তিন জঙ্গিকে এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ। তদন্ত সংশ্লিষ্টদের ধারণা, গ্রেফতার হওয়া জুলফিকার আলী, মো. আলাউদ্দিন এবং মুহিবুল আলমের কাছ থেকে এ হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তাই তাদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ। চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, জেলা পুলিশের গ্রেফতার করা তিন জঙ্গিকে আমরাও জিজ্ঞাসাবাদ করব। এমনও হতে পারে তাদের কাছ থেকে এসপি স্ত্রী মিতু হত্যার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে পারি। এ হত্যাকাণ্ডের ক্লু উদ্ঘাটন ও আসামিদের গ্রেফতার করতে সব সম্ভাবনা কাজে লাগাব আমরা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল মাসুদ জানান, গ্রেফতার হওয়া তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। তাদের মধ্যে মুহিবুলের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। বাকি দুজনের শুনানি আগামী রবিবার হবে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, সীতাকুণ্ড থেকে গ্রেফতার হওয়া জুলফিকার আলী ও মো. আলাউদ্দিন বাংলাভাইয়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিল। ২০০১ সালে আবদুর রহমান ওরফে বাংলাভাই যখন সীতাকুণ্ডে এসেছিলেন- তখন এ দুজন জঙ্গিদের সংগঠিত করে। পরে তারা আনসারউল্লাহ বাংলা টিম (আনসার আল ইসলাম)-এ যোগদান করে। বর্তমানে তারা আনসার আল ইসলামের সংগঠক হিসেবে এলাকায় কাজ করছিল। তাদের বিরুদ্ধে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় মামলাও রয়েছে। রাউজান থেকে গ্রেফতার হওয়ায় মুহিবুল হিযবুত তাহ্রীরের কেন্দ্রীয় নেতা। বিজিসি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র মুহিবুল ২০১৩ সালে একবার গ্রেফতার হয়েছিল। পরে জামিনে ছাড়া পেয়ে আবারও সে রাউজান ও বন্দরনগরীতে হিযবুত তাহ্রীরকে সংগঠিত করার কাজ শুরু করে। পুলিশের ধারণা, এ তিনজনের কাছে চট্টগ্রামের জঙ্গিদের কর্মকাণ্ড নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসবে অনেক তথ্য।   প্রসঙ্গত, গত ৫ জুন নগরীর জিইসির মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু।

up-arrow