Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ জুন, ২০১৬ ২২:৪৮
স্বাস্থ্য প্রতিদিন
রমজানে থাকুন হাঁটুব্যথা মুক্ত
রমজানে থাকুন হাঁটুব্যথা মুক্ত

বয়স চল্লিশের ঊর্ধ্বে হলে অনেকের বেশ হাঁটু ব্যথা করে।   এ সময় এদের হাড় ক্ষয়জনিত সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

রোগী এসে বলে নামাজে হাঁটু ভাঙলে কিছুৃটা সমস্যা হয়। বসতে গেলে চোখ দিয়ে পানি পড়ে, অনেকে বলে হাঁটু ফুলে কলাগাছের মতো হয়ে গিয়েছিল। এ মূল কারণ হচ্ছে অস্টিওআর্থ্রাইটিস। এটি এক ধরনের বাত। আসলে আথ্রাইটিস হচ্ছে চলমান একটি রোগ মাঝে মাঝেই এটি দেখা দেয়। আথ্রাইটিসের প্রাথমিক পর্যায়ের চিকিৎসা হচ্ছে ওষুধ। তবে এক সময় হাঁটুর চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপির গুরুত্বই বেশি হয়। রোগী যখন প্রথম প্রথম ব্যথা অনুভব করেন তখন হাঁটার সময় পায়ের মধ্যে ভরের ভারসাম্য এদিক ওদিক করে ফেলে। হয় সে সামনে ভর দেয় অথবা পেছনে ভর দেয়। এককথায় যেভাবে ব্যথা কম লাগে সেভাবেই পায়ে ভর দেয়। এতে করে হাঁটুর জয়েন্টের মধ্যে একটা পজিশনাল ফল্ট বা অল্প ডিসপ্লেসমেন্ট দেখা দেয়। ফলে রোগী হাঁটু ভাঁজ করে বসতে পারে না, সিঁড়ি বা উঁচু-নিচু উঠতে বসতে কষ্ট হয়। অনেক সময় হাঁটুতে কট কট শব্দ বা টান টান অনুভব হয়, অনেক চিকিৎসক আছেন হাঁটুতে ব্যথা হলেই হাঁটু ভেঙে বসতে মানা করেন। এতে তার জয়েন্টের ভিতরের সব লিগামেন্ট বা ক্যাপ্সুল ও অন্য অংশগুলো শক্ত হয়ে যাবে। ফলে যে বয়সে আথ্রাইটিস আসার কথা তার চেয়ে আগেই চলে আসবে। এর জন্য দরকার সঠিক ম্যানুয়াল ও ম্যানুপুলেশন ফিজিওথ্রেরাপি চিকিৎসা, যা রোগীকে হাঁটু ভেঙে বসতে সাহায্য করবে। তাই রোজার এই সময়টাতে হাঁটু ব্যথা মুক্ত থাকলে সহজেই আদায় করা যাবে নামাজ।

ডা. মো. শাহাদৎ হোসেন

কনসালটেন্ট, পপুলার মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল, ঢাকা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow