Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ জুন, ২০১৬ ০২:১০
৫০ হাজার মেট্রিক টন আম কিনবে প্রাণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

চলতি বছর প্রায় ৫০ হাজার মেট্রিক টন পাকা আম কেনার লক্ষমাত্রা নিয়ে সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করেছে প্রাণ এগ্রো লিমিটেড। নাটোরের এ কারখানায় গত ২৪ মে থেকে আম সংগ্রহ শুরু হয়েছে।

চলবে আগামী আগস্ট মাস পর্যন্ত। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, প্রাণ এগ্রো লিমিটেড আমচাষিদের কাছ থেকে মূলত গুটি এবং আশ্বিনা জাতের আম ক্রয় করে। সংগৃহীত আম থেকে ১২টি ধাপে পাল্প তৈরি হয়। এ সময় আমের বিচি এবং খোসা আলাদা হয়ে যায়। যা পরবর্তীতে রান্নায় আগুন জ্বালানোর উপকরণ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। উত্তরাঞ্চলের চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ ও দিনাজপুরের প্রায় ১৩ হাজার চুক্তিভিত্তিক আমচাষির কাছে থেকে প্রাণ আম সংগ্রহ করে।

সূত্র জানায়, ফ্যাক্টরিতে আম প্রবেশের সময় কোয়ালিটি কন্ট্রোলার দ্বারা আম পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তা গ্রহণ করা হয়। প্রথমে আমগুলো পাকা কি না- তা দেখা হয়। পোকা থাকা বা রোগাক্রান্ত এবং পচা কি না— তা পরীক্ষা করা হয়। এরপর ল্যাবে ফরমালিন, পি-এইচসহ প্রয়োজনীয় পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। আম নেওয়ার সময় আরেকটি জিনিস লক্ষ্য করা হয় তা হলো, আমের ওজন। ল্যাব টেস্টে উত্তীর্ণ হলেই কেবল আম ফ্যাক্টরিতে প্রসেসের জন্য নেওয়া হয়। এই আমগুলো ফ্যাক্টরিতে বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ক্রাসিং করে পাল্প সংগ্রহ করে তা রাখা হয়। সংগৃহীত এই পাল্প অ্যাসেপটিক প্রযুক্তিতে সংরক্ষণ করা হয়। এই পদ্ধতিতে হিমায়িতকরণ ছাড়া কমপক্ষে একবছরের জন্য পাল্প নিরাপদ, তাজা থাকে।

নাটোরের একডালায় ৪২ একর জমির ওপর প্রাণ এগ্রো লিমিটেড কারখানাটি অবস্থিত। প্রাণ ২০০০ সালে এ কারখানা গড়ে তোলে। আম ছাড়াও এখানে বিভিন্ন মৌসুমে টমেটো, বাদাম, ডাল, পেয়ারা, আনারস, হলুদ ও মরিচসহ প্রয়োজনীয় কৃষিজাত ফসল সংগ্রহ ও প্রক্রিয়াজাত করা হয়। এই কারখানায় উৎপাদিত পণ্যের মধ্যে রয়েছে প্রাণ সস, জেলি, আচার, ম্যাংগোবার, চাটনি, নুডলস, পিনাটবার, সরিষার তেল এবং বিভিন্ন রকম মসলা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow