Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ জুন, ২০১৬ ০২:২৪
কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর মৃত্যুবার্ষিকী আজ
সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক
কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বিগত ৭০ দশকের অন্যতম প্রধান কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর আজ ২৫তম মৃত্যুবার্ষিকী। আশির দশকে স্বকণ্ঠে কবিতা পাঠে যে কজন কবি শ্রোতাদের প্রিয় হয়ে ওঠেন রুদ্র তাদের অন্যতম।

তারুণ্য ও প্রতিবাদী কবি হিসেবে খ্যাত রুদ্র মাত্র ৩৪ বছরে বয়সে ১৯৯১ সালের এই দিনে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। ১৯৫৬ সালের ১৬ অক্টোবর চিকিৎসক পিতার কর্মস্থল বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন রুদ্র। ঢাকা ওয়েস্ট অ্যান্ড হাইস্কুল থেকে ১৯৭৪ সালে এসএসসি এবং ঢাকা কলেজ থেকে ১৯৭৬ সালে এইচএসসি পাস করেন। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হন। ১৯৮০ সালে সম্মানসহ স্নাতক এবং ১৯৮৩ সালে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। তার বাড়ি বাগেরহাটের মংলা উপজেলার মিঠেখালি গ্রামে। কবির স্মরণে মিঠেখালিতে গড়ে উঠেছে রুদ্র স্মৃতি সংসদ। রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলো হলো— উপদ্রুত উপকূল (১৯৭৯), ফিরে চাই স্বর্ণগ্রাম (১৯৮২), মানুষের মানচিত্র (১৯৮৪), ছোবল (১৯৮৬), গল্প (১৯৮৭), দিয়েছিলে সকল আকাশ (১৯৮৮), মৌলিক মুখোশ (১৯৯০)। ছোটগল্পের মধ্যে রয়েছে ‘সোনালি শিশির’। নাট্যকাব্য ‘বিষ বিরিক্ষের বীজ’। তারুণ্য ও সংগ্রামের দৃপ্ত প্রতীক কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ ৩৪ বছরের স্বল্পায়ু জীবনে সাতটি কাব্যগ্রন্থ ছাড়াও গল্প, কাব্যনাট্য এবং ‘ভালো আছি ভালো থেকো’সহ অর্ধশতাধিক গান রচনা ও সুরারোপ করেছেন। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাগেরহাটের মংলা উপজেলার মিঠেখালিতে কবির বাড়িতে রুদ্র স্মৃতি সংসদ আজ বিকালে শোভাযাত্রা সহকারে কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও ইফতারের আয়োজন করেছে। সন্ধ্যায় রুদ্র সংসদ কার্যালয়ে কবির স্মরণে সভা অনুষ্ঠিত হবে।

up-arrow