Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২২ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২১ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৬
স্বাস্থ্য প্রতিদিন
রমজানে ডায়াবেটিস রোগীর খাদ্যশৃঙ্খল
রমজানে ডায়াবেটিস রোগীর খাদ্যশৃঙ্খল

রমজানে ডায়াবেটিস রোগীদের সতর্ক থাকা জরুরি। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে চিকিৎসকের কাছ থেকে জেনে নিতে হবে রোগীর শারীরিক অবস্থা রোজা পালনের উপযুক্ত কিনা। রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে ধারণা নিন। প্রয়োজনে এ মাসের জন্য পৃথক খাদ্য তালিকা সংগ্রহ করুন। রমজানে সন্ধ্যার পর থেকে ভোর পর্যন্ত খাবারগুলোকে তিন ভাগ করে নিতে হবে। চিনিযুক্ত পানীয়, জিলাপি বা মিষ্টি খাবার বর্জনীয়। দু-একটি খেজুর খাওয়া যাবে। অতিরিক্ত তৈলাক্ত ও ভাজাপোড়া খাবার বর্জন করাই ভালো। সন্ধ্যার পর প্রচুর পানি, লেবু-পানি (লবণ দিয়ে) বা ডাবের পানি পান করুন। সাহরি অবশ্যই পরিপূর্ণ খেতে হবে। দিনের বেলায় ব্যায়াম না করাই ভালো। ইফতারের দু-এক ঘণ্টা পর ২৫-৩০ মিনিট হাঁটতে পারেন বা তারারি নামাজের কারণে তা সম্পন্ন হয়ে যেতে পারে। রমজানে কিছু ওষুধের কোনো পরিবর্তন প্রয়োজন হয় না, আবার কোনো কোনো ওষুধ ও ইনসুলিনের পরিমাণ, মাত্রা ও প্রয়োগের সময় বদলাতে হয়। এ বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করে জেনে নিন। রোজাদার ডায়াবেটিস রোগীর শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে পরিবারের সদস্যদেরও সচেতন থাকতে হবে। অল্প পরিমাণ নিয়মানুযায়ী খাবেন।  বেশি  খাবেন না। অনেকেই ভাবেন ইনসুলিনই শেষ ওষুধ, তা কিন্তু নয়; এটা ডায়াবেটিস রোগীদের ভুল ধারণা। ইনসুলিনের পাশাপাশি ডায়াবেটিস রোগীর উচিত সুনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন করা।

অধ্যাপক ডা. মো. নুরুল গনি

ডায়াবেটিস ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ঢাকা।




up-arrow