Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২২ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২২ জুন, ২০১৬ ০১:৪১
নৌ ট্রানজিটে নেপালের আগ্রহ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশের নৌপথ ব্যবহার করে ট্রানজিট সুবিধায় পণ্য পরিবহনে আগ্রহ প্রকাশ করল নেপাল। গতকাল সফররত দেশটির একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দল নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করে এ আগ্রহ প্রকাশ করে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, উভয় দেশের সমন্বয়ে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হবে। পরে ওই কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে ট্রানজিট কার্যকরে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। বাংলাদেশের পক্ষে নৌপরিবহন সচিব অশোক মাধব রায় এবং নেপালের পক্ষে সে দেশের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব চন্দ্র ঘিমির নেতৃত্ব দেন।

বৈঠক শেষে নৌ-পরিবহন সচিব অশোক মাধব রায় সাংবাদিকদের জানান, নেপালি বন্ধুরা এরই মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর পরিদর্শন করেছেন। আমরা তাদের চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর থেকে চিলাহাটি, বিরলসহ তিনটি পয়েন্ট দিয়ে পণ্য পরিবহনের সুযোগের কথা বলেছি। নেপাল পর্যন্ত পণ্য পরিবহনের রেল ও সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কেও অবহিত করা হয়েছে বলে জানান সচিব। তিনি বলেন, এখন আমরা রেল, সড়ক ও নৌ মন্ত্রণালয়ের বিশেষজ্ঞদের দিয়ে একটি কমিটি করে দেব। কমিটি পুরো বিষয়টি মাঠ পর্যায়ে পরিদর্শনের মাধ্যমে প্রতিবেদন দাখিল করবে। প্রতিবেদন দেখে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করা হবে। এরপর নদী খনন, রেল লাইন স্থাপন ও সংস্কার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে।  নেপাল প্রতিনিধি দলের প্রধান চন্দ্র ঘিমির বলেন, বাংলাদেশের চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্র বন্দর ব্যবহারের মাধ্যমে নৌপথ ব্যবহার করে ট্রানশিপমেন্ট সুবিধায় তারা পণ্য পরিবহনে আগ্রহী। বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে মংলা ও পায়রা বন্দরের প্রতিনিধি, বিআইডব্লিউটিএ’র ও স্থলবন্দরের চেয়ারম্যান, নৌ অধিদফতরের মহাপরিচালক এবং বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে নেপাল প্রতিনিধিদলে ছিলেন, বাংলাদেশে নেপাল দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স সুশীল কে লামসাল, নেপাল ইন্টারমোডাল ট্রান্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক লক্ষণ বাহাদুর বাসনেত এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি ভুবন প্রসাদ আচার্য।




up-arrow