Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২২ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২২ জুন, ২০১৬ ০১:৪২
দ্বিতীয় দিনেও টিকিটের জন্য হাহাকার
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদে বাড়ি ফেরার অগ্রিম টিকিট ছাড়ার দ্বিতীয় দিন ছিল গতকাল। সুনসান নীরবতা কল্যাণপুর শ্যামলী বাস কাউন্টারে। বসে আছেন তিনজন মাস্টার। তারা গল্প-গুজবে ব্যস্ত। নাসির চাকরি করেন বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে। ঈদের ছুটি পেয়েছেন ২ জুলাই থেকে। তিনি সেখানে উপস্থিত হয়ে খোঁজ করলেন টিকিটের। কাউন্টার মাস্টাররা জানালেন টেকনিক্যাল, শ্যামলী কাউন্টারে দেওয়া হচ্ছে অগ্রিম টিকিট। এখনো টিকিট শেষ হয়নি। টেকনিক্যাল কাউন্টারে উপস্থিত হয়ে দিনাজপুর যাওয়ার দুটি টিকিট চাইলেন টিকিট প্রত্যাশী নাসির। সেখানকার কাউন্টার মাস্টার জানালেন টিকিট নেই। ৩ জুলাইয়ের একটি টিকিট আছে পাওয়া যাবে একেবারে শেষের লাইনে। সরেজমিন গিয়ে এমনই চিত্র ছিল উত্তরাঞ্চলের বাস কাউন্টারগুলোতে। শুধু শ্যামলী পরিবহনে নয়, গাবতলী মাজার রোডের নাবিল পরিবহন, বালুরমাঠ টার্মিনালের হানিফ পরিবহন, কেয়া, রোজিনা ও খালেক এন্টারপ্রাইজেও ছিল ঈদ যাত্রীদের টিকিটের জন্য হাহাকার। গত সোমবার দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে অগ্রিম টিকিট শেষ হয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছিলেন যাত্রীরা। কাউন্টার মাস্টাররা জানান, গত সাত দিনে সব টিকিট স্থানীয় থানা পুলিশ, সরকারদলীয় বিভিন্ন লোকজনের দ্বারা রিজার্ভ হয়ে যাওয়ায় এই বাড়তি চাপ। মাজার রোডের নাবিল পরিবহনের কাউন্টারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সেখানে কাউন্টার খোলা ছিল। ছিল টিকিট প্রত্যাশী যাত্রীদের ভিড়। কিন্তু ছিল না প্রত্যাশিত টিকিট। যারা অনেক কষ্টে ‘সোনার হরিণ’ তুল্য টিকিট পেয়েছিলেন তাদের অভিযোগ, নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি মূল্য রাখছে। শ্যামলী ও হানিফ পরিবহনে যে টিকিটের মূল্য রাখা হচ্ছে ৬৩০-৬৫০ টাকা নাবিল পরিবহনে একই টিকিটের মূল্য রাখা হচ্ছে ৮০০ টাকা করে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেনারেল ম্যানেজার আনিছুর রহমান আনিছ বলেন, যা ভাড়া তাই রাখা হচ্ছে বাড়তি নয়।

তবে হানিফ পরিবহনের বেশির ভাগ টিকিট শেষ হয়ে গেছে অগ্রিম বিক্রির প্রথম দিনই। দ্বিতীয় দিনে দু-একজন পরিবারের জন্য টিকিট নিতে এলেও মিলছে শুধু নির্ধারিত দিনের একটি মাত্র টিকিট। বাধ্য হয়ে অনেকে টিকিট না নিয়েই ফিরে যাচ্ছেন। কেউ কেউ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ঢাকায় ঈদ করার।

সেখানকার কাউন্টার মাস্টার মোহাম্মদ আলী জানান, এখানে কোনো ধরনের অতিরিক্ত মূল্য নেওয়া হচ্ছে না। ঈদের সময় টিকিটের এমনিতেই সংকট থাকে। তবু দু-একটি টিকিটের জন্য যারা আসছেন তারা পাচ্ছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow