Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ জুন, ২০১৬ ২৩:৫৩
বাগেরহাটে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সেনাপতি চেয়ারম্যান রুমি আর নেই
বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাট জেলা যুবদলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান স ম রফিকুল ইসলাম রুমি (৬২) মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। গতকাল সকাল ৯টায় বাগেরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ক্যান্সারে আক্রান্ত রুমির মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার ভাই, চার বোনসহ অসংখ্য রাজনৈতিক স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বাগেরহাট শহরের আলিয়া মাদ্রাসা, রণবিজয়পুর, পাটরপাড়া জামে মসজিদে জানাজা শেষে বিকালে শহরতলির পাটরপাড়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে জনপ্রিয়-নির্লোভ এই নেতার দাফন সম্পন্ন হয়। রফিকুল ইসলাম রুমি বাগেরহাটে ষাটের দশকে ছাত্র ইউনিয়ন-ভাসানী ন্যাপের রাজনীতির মধ্য দিয়ে তার রাজনীতিতে পথচলা শুরু। পরে তিনি জেলা জাতীয়তাবাদী যুবদলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং কাড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদে চারবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ছিলেন নব্বইয়ের দশকে স্বৈরাচার এরশাদবিরোধী আন্দোলনে বাগেরহাটের রাজপথের লড়াকু সেনাপতি। অন্যায়ের বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন সব সময় আপসহীন। এ জন্য তাকে বারবার কারাবরণ করতে হয়েছে। অর্থের কাছে তিনি কখনোই বিক্রি হননি। এ কারণে তার তিনটি জানাজায় ছিল দলমত নির্বিশেষে অসংখ্য মানুষের উপস্থিতি। বিবাহিত জীবনে তিনি ছিলেন নিঃসন্তান।

বাগেরহাটের জনপ্রিয় এই নেতার অকালমৃত্যুতে পরিবারের প্রতি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শেখ মজিবুর রহমান, অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বুলবুল, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শেখ আকরাম হোসেন তালিম, শেখ নজরুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম গোরা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খাদেম নিয়ামুল নাসির আলাপ, মনিরুল ইসলাম খান, অ্যাডভোকেট শেখ জাহিদুল ইসলাম, অহিদুল ইসলাম পল্টু, ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম, নওশের আলী মোল্লা, সৈয়দ নাসির আহম্মেদ মালেক, তারেক আলী মিঠু, মংলা পৌর মেয়র জুলফিকার আলীসহ বিএনপি, কমিউনিস্ট পার্টি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow