Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০৭
ফৌজদারি মামলায় সাক্ষীর নিরাপত্তা নিয়ে হাইকোর্টের রুল
নিজস্ব প্রতিবেদক

ফৌজদারি মামলায় সাক্ষীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল  জারি করেছে হাইকোর্ট। চট্টগ্রামের এক মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ার পর হয়রানির অভিযোগ তুলে কমল কুমার দেবনাথের করা রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বুধবার বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর এবং বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করে। চার সপ্তাহের মধ্যে আইন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার, কোতোয়ালি থানার ওসিসহ ১০ জনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী চৌধুরী সামসুল আরেফিন ও ফাহিমা পারভীন। আদালতের আদেশের এ বিষয়টি আইনজীবীরা গতকাল সাংবাদিকদের জানান। আইনজীবী সামসুল আরেফিন বলেন, ইয়াবা উদ্ধারের ওই মামলায় কমল কুমার সাক্ষী হওয়ার পর থেকেই জামিনে মুক্ত আসামি তাকে হুমকি দিচ্ছে। বিচারিক আদালত পুলিশকে অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দেয়। তবে পুলিশ মনগড়াভাবে তদন্ত করে। পরবর্তীতে আসামির হুমকির মাত্রা আরও বেড়ে যায়। আসামি ও পুলিশের এক ধরনের  যোগসাজশে এখন সাক্ষীর স্বাভাবিক জীবন-যাপন দুর্বিষহ।

২০১১ সালের ২৪ মার্চ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে চট্টগ্রামের  কোতোয়ালি থানায় অশোক বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তির নামে পুলিশ ১ হাজার ১৭৫ পিস ইয়াবা উদ্ধারের অভিযোগে মামলা করে। মামলায় ইয়াবা জব্দ তালিকার সাক্ষী ছিলেন কমল কুমার  দেবনাথ। সাক্ষী হওয়ায় এই মামলায় তাকে আসামি হুমকি দিতে থাকে। ওই মামলায় ২০১৫ সালের আগস্টে কমল কুমার মামলার সাক্ষ্য দেন। এরপর থেকে তাকে ওই ব্যক্তি হুমকির মাত্রা বাড়িয়ে  দেয়। পরে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আইজি বরাবর একটি আবেদন করে কমল কুমার। যাতে উল্লেখ করা হয়, পুরো বিষয়টি সিকিউরিটি সেলের মাধ্যমে তদন্ত করা হোক। একই সঙ্গে সাক্ষী ও তার পরিবারের নিরাপত্তা দিতে বলা হয়। এই আবেদনের বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow