Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : সোমবার, ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:৪৮
সহিংসতার কারণ খুঁজে বের করতে হবে
—— ড. ইউনূস
নিজস্ব প্রতিবেদক

গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জিম্মি করে দেশি ও বিদেশিদের হত্যার ঘটনাকে বর্বোরোচিত উল্লেখ করে শান্তিতে নোবেলজয়ী প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূস নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তিনি নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বলেন, নিরপরাধ মানুষের ওপর যে বর্বোরোচিত হামলা হয়েছে তাতে আমি মর্মাহত। তিনি বলেন, সহিংসতার কারণ খুঁজে বের করতে হবে। শনিবার রাতে ইউনূস সেন্টার থেকে এ বার্তাটি পাঠানো হয়। বার্তায় প্রফেসর ইউনূস বলেন, বাংলাদেশে এ ধরনের হামলা হচ্ছে এটি আমি ভাবতেও পারি না। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ একটি সহনশীল উদার দেশ। কীভাবে এ দেশে এ ধরনের সহিংসতা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে, তা অবশ্যই আমাদের আন্তরিক প্রচেষ্টা নিয়ে খুঁজে বের করতে হবে। সবার জন্য শান্তিপূর্ণ সমাজ গড়ে তুলতে চাই যেখানে সবার ঠাঁই হবে। কোনো সামাজিক ও সরকারি বাধা ছাড়াই প্রত্যেকে নিজ নিজ দৃষ্টিভঙ্গি স্বাধীনভাবে প্রকাশের অধিকার পাবেন। আমরা সমতা ও মর্যাদাপূর্ণ একটি নতুন বিশ্বের অংশ হতে চাই। সামরিক বা সন্ত্রাসবাদী সহিংসতা কোনো একটি দেশ বা অঞ্চলে চলমান থাকতে পারে না এমন মন্তব্য করে বিবৃতিতে ড. ইউনূস মধ্যপ্রাচ্যে দীর্ঘস্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সব দেশের প্রতি আহ্বান জানান। আমাদের অবশ্যই জেগে উঠতে হবে। কারণ সহিংসতা এক জায়গায় শুরু হলে তা অন্য জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে। এমন কি বিশ্বের সবচেয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও। তিনি এ ধরনের সহিংস ঘটনা প্রতিরোধে ক্ষমতাধর দেশগুলোকে নিজেদের মধ্যে বিভেদ কাটিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সুশীল সমাজের নেতাদের প্রতি আহ্বান মধ্যপ্রাচ্যে দ্রুত শান্তি স্থাপন এবং সহিংসতা বন্ধে ক্ষমতাধর দেশগুলোকে আলোচনার জন্য এক টেবিলে বসতে চাপ প্রয়োগ করুন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow