Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৫৪
পিটিয়ে মুক্তিযোদ্ধা হত্যা
ওসির গ্রেফতার ও বিচার দাবি
নিজস্ব প্রতিবেদক ও জামালপুর প্রতিনিধি

জামালপুরে রেলওয়ে পুলিশ কর্তৃক পিটিয়ে মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বারী হত্যার নিন্দা জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের নেতাসহ ’৭১ এর রণাঙ্গনের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধারা। গতকাল এক বিবৃতিতে তারা এ ঘটনায় জড়িত ওসি গৌরচন্দ্র মজুমদারসহ সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম, ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরী, মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, ইশতিয়াক আজীজ উলফাতসহ অর্ধশত রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা।

আজ মানববন্ধন : মুক্তিযোদ্ধা বারী হত্যার প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আজ বেলা ১১টায় মানববন্ধনের আয়োজন করেছে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

জংশন স্টেশন মাস্টার স্ট্যান্ড রিলিজ : রেল পুলিশের নির্যাতনে মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বারিক নিহতের ঘটনায় জামালপুর জংশন স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মো. তারিককে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে। নিহত মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বারিকের বড় ছেলে মুকুল ইসলাম বাদী হয়ে জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গৌর চন্দ্র মজুমদারসহ ৪ জনকে আসামি করে জামালপুর থানায়  হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন : গতকাল বাদ আসর হাটচন্দ্রা মসজিদ মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সেনা সদস্য আবদুল বারিকের (বারির) জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

এ সময় জামালপুরের জেলা প্রশাসক শাহাবুদ্দিন খান, পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দিন, পৌর মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার শফিকুল ইসলাম খোকা, সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট ওয়ারেছ আলী মামুনসহ মুক্তিযোদ্ধা ও বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশ নেন।

উল্লেখ্য, গত সোমবার জামালপুর জংশন স্টেশনে জামালপুর জিআরপি থানার ওসির উপস্থিতিতে পুলিশ পিটিয়ে আহত করে মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বারিককে (বারি)। পরে ময়মনসিংহ সিএমএইচে নেওয়ার পর তিনি মারা যান।

মানববন্ধন কর্মসূচি : জামালপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সাবেক এমপি শফিকুল ইসলাম খোকা জানিয়েছেন, মুক্তিযোদ্ধা বারিক নিহতের ঘটনায় আজ (বুধবার) কালোব্যাজ ধারণ ও কাল (বৃহস্পতিবার) এই হত্যার ঘটনায় জড়িত জিআরপি থানার ওসি গৌর চন্দ্র মজুমদারসহ দোষী পুলিশদের শাস্তির  দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow