Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০১৬ ০২:২৭
নারায়ণগঞ্জে শ্যামল কান্তির ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত বন্দর উপজেলার কল্যান্দি এলাকায় পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তের বিরুদ্ধে ওই স্কুলেরই এক নারী শিক্ষকের কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে দেখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইদুজ্জামান শরীফের আদালত এ আদেশ দেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে মামলার আবেদন করা হয়। যার মধ্যে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও শিক্ষার্থী রিফাতকে মারধরের মামলার আবেদনটি খারিজ করে দেয় আদালত। নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের এসআই সাখাওয়াত হোসেন জানান, ঘুষ নেওয়ার অভিযোগটি তদন্ত করে আগামী ৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট আদালতে জমা দেওয়ার জন্য বন্দর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ এনে স্কুল কমিটির লোকজন ও স্থানীয় জনগণ প্রথম মারধর করে। পরে স্থানীয় জাতীয় পার্টির নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর ও বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম সেলিম ওসমান কান ধরে উঠবোস করান। তবে এ বিষয়ে লজ্জিত ও দুঃখ প্রকাশ করে শিক্ষকের প্রাণ বাঁচাতে এ কাজ করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলন করে দাবি করেন সেলিম ওসমান। এ ছাড়াও শ্যামল কান্তিকে বরখাস্ত করে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি। কিন্তু পরে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সাময়িক বরখাস্ত প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে স্বপদে বহাল রাখার সিদ্ধান্ত জানান। সেই সঙ্গে এ ঘটনায় ওই স্কুল পরিচালনা কমিটিকে বাতিলের ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী।

গত ১০ জুলাই সকালে প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি কর্মস্থলে যোগদান করেন। তবে ওই দিনই নিরাপত্তাহীনতার কারণে রিফাতকে স্কুল থেকে নিয়ে যান রিফাতের মা রিনা বেগম। এদিকে চোখের অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে ৭ দিনের ছুটি নিয়ে প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি বর্তমানে ছুটিতে রয়েছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow