Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩৬
চট্টগ্রামে মসলার বাজারে উত্তাপ
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের মসলার বাজারে আগুনের উত্তাপ বইছে। প্রতিদিনই এ উত্তাপ বাড়ছে। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, ঈদ পার না হওয়া পর্যন্ত এ উত্তাপ বাড়তেই থাকবে। খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, একমাসের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে ৫ শতাংশ থেকে ২০০ শতাংশেরও বেশি দাম বেড়েছে মসলার। কিছু কিছু মসলার দাম সাধারণ ভোক্তার ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। ক্রেতা স্বার্থ সংরক্ষণ কমিটি ও ক্যাবের নেতারা বলছেন, পাইকারি ও খুচরা বাজার সবখানেই মসলার বাজার বেশ ঊর্ধ্বমুখী। আমদানিকারক এবং বিক্রেতাদের দাবি, অতিরিক্ত আমদানি শুল্ক পরিশোধ ও অবৈধ পথে বাজারে মসলার অনুপ্রবেশই এর জন্য দায়ী। দেশের অন্যতম বৃহৎ পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, গত মাসের (আগস্ট) ৭ তারিখ প্রতিকেজি ইন্ডিয়ান শুকনো মরিচের দাম ছিল ১৫৮ টাকা। গতকাল একই মরিচ বিক্রি হয়েছে ১৬২ টাকায়। দেশি রায়পুরী মরিচের দাম ছিল ১২০ টাকা, এখন ১৩৫ টাকা। সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে আদা ও রসুনের। গত মাসে এইদিনে আদার দাম ছিল ৩২ টাকা, এখন তা বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। অপরদিকে রসুনের দাম ছিল ৮০ টাকা, এখন ১৭০ টাকা। এতে দেখা যাচ্ছে দুই থেকে তিনগুণ দাম বেড়েছে এ দুটি পণ্যের। একইভাবে এলাচ ৮০৫ থেকে ৯১০, লং ৯০০ থেকে ৯৮০, দারুচিনি ২০০ থেকে ২১৮, চিকন জিরা ১০৫ থেকে ১২০ দামে বিক্রি হচ্ছে পাইকারি বাজারে। অন্যদিকে কিছু মসলার দাম কমেছে পাইকারি ও খুচরা বাজারে। এই তালিকায় রয়েছে পিয়াজ, হলুদ, জিরা ও ধনিয়া।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow