Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০২:৩১
রমনার সংরক্ষণ ও সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ শুরু
নিজস্ব প্রতিবেদক

রমনা পার্কের সৌন্দর্যবর্ধন, ঐতিহ্য সুরক্ষা ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের কাজ শুরু হয়েছে। গতকাল পার্কে ১০টি মিলেশিয়া গাছ রোপণের মধ্য দিয়ে এ কাজ শুরু করা হয়।

রমনা পার্ক সংরক্ষণ কর্মসূচির আওতায় জরিপ কাজ পরিচালনার মাধ্যমে অপ্রয়োজনীয় গাছ অপসারণ করে পরিকল্পনা মোতাবেক সুনির্দিষ্ট বৃক্ষরোপণ, উন্মুক্ত স্থান নির্ধারণ, প্রতিটি গাছের ইতিহাসসহ পরিচিতি ফলক লাগানো এবং অপ্রয়োজনীয় স্থাপনা অপসারণ করা হবে। সংরক্ষণ কাজের সূচনা উপলক্ষে গতকাল রমনা পার্কের ইউরো রেস্তোরাঁয় সরকারি কর্মকর্তা, বিশেষজ্ঞ ব্যক্তি ও রমনা পার্ক ব্যবহারকারীদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রমনা পার্ক ফেডারেশন অব ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এর আর খান, গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. হাফিজুর রহমান মুন্সি, প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসির, বিশিষ্ট গবেষক দ্বিজেন শর্মা, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী বলেন, রমনা পার্কের সৌন্দর্যবর্ধনে সবাই এগিয়ে এসেছে। ফলে এর সংস্কার কাজ করা অনেক সহজ হবে। ইতিমধ্যে ছায়ানটের বর্ষবরণ ছাড়া আর কোনো অনুষ্ঠানের অনুমতি না দেওয়ার বিষয়ে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ পার্কের সৌন্দর্যবর্ধন ও ঐতিহ্য রক্ষায় সম্ভব সব কিছুই করা হবে। পার্কের লেকে পরিকল্পিতভাবে জাতীয় ফুল শাপলাসহ অন্যান্য জলজ উদ্ভিদ লাগানো হবে।

তিনি বলেন, অনিয়ন্ত্রিতভাবে রমনা পার্ক ব্যবহার হওয়ায় এর সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ফলে অনেক দুর্লভ বৃক্ষ ও তরুলতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এবং পার্কের ঐতিহ্য নষ্ট হচ্ছে। অস্থায়ী ও ভ্রাম্যমাণ হকারদের উপদ্রপের কারণে রমনা পার্কের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়েছে।

up-arrow