Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫১
ইউপি চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন আইন বাতিল চেয়ে নোটিস
নিজস্ব প্রতিবেদক

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন দেওয়ার বিধান সংবলিত স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন (সংশোধন) ২০১৫ বাতিল চেয়ে আইনি নোটিস দেওয়া হয়েছে। গতকাল হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পাঁচ আইনজীবীর পক্ষে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ ডাকযোগে এ নোটিস পাঠান। মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতির সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয়ের সচিব, আইন সচিব, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সচিব, স্থানীয় সরকার সচিব ও আইন মন্ত্রণালয়ের ড্রাফটিং উইংয়ের সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে নোটিসের জবাব দিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে নোটিসে উল্লেখ করা হয়েছে। নোটিসে বলা হয়, স্বাধীনতার পর প্রণীত সংবিধানে স্থানীয় সরকারকে অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে রাখা হয় এবং সব নির্বাচন সেই অনুসারে হয়েছে। পরবর্তীতে ২০০৬ সালে গ্রাম আদালত গঠন করে বিচারের দায়িত্ব চেয়ারম্যানকে দেওয়া হয়েছে। নিরপেক্ষ ও স্বাধীন বিচার করার দায়িত্ব দেওয়া হলেও যিনি রাজনৈতিক দলের মনোনয়নে নির্বাচিত হবেন তার কাছ থেকে বিরোধীরা নিরপেক্ষ ও ন্যায়বিচার পাবেন না। এতে আরও উল্লেখ করা হয়, কুদরত ইলাহি পনির বনাম বাংলাদেশ মামলার রায়ে সুপ্রিমকোর্ট স্থানীয় প্রশাসনকে একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তা সত্ত্বেও স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ সংশোধন করে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীকে রাজনৈতিক মনোনয়নের বিধান সংযোজন করে ২০১৫ সালে আইনটি সংশোধন করে। যাতে স্থানীয় সরকারের স্বাধীন ও নিরপেক্ষ চরিত্র খর্ব করা হয়েছে। নোটিসে বলা হয়, বাহাত্তরের সংবিধানের ১১, ৫৯ ও ৬০ অনুচ্ছেদেও স্থানীয় সরকারকে অরাজনৈতিক রাখা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow