Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:১০
চালককে মারধরের জের
টঙ্গীতে এসআইকে গণপিটুনি
টঙ্গী প্রতিনিধি

গাজীপুরের টঙ্গী চেরাগআলী সুরতরঙ্গ রোড এলাকায় শনিবার রাতে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের এক চালককে মারধরের ঘটনায় টঙ্গী থানার এসআই বেলাল হোসেনকে গণপিটুনি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আহত অ্যাম্বুলেন্সের চালক মো. সাবের হোসেনকে গাজীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ খবরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাতে গাজীপুর সদর হাসপাতালে আসা হৃদরোগে আক্রান্ত সুফিয়া বেগম (৩৫) নামের এক রোগীকে নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সটি সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। মহাসড়কে তীব্র যানজট থাকায় অ্যাম্বুলেন্সটি টঙ্গীর কলেজগেট হয়ে উল্টোপথে যাচ্ছিল। এ সময় গাড়িটি স্থানীয় সুরতরঙ্গ রোড এলাকায় পৌঁছলে এসআই বেলাল গাড়ি থামান। পরে চালককে অকথ্য ভাষায় গালমন্দের এক পর্যায়ে বেদম মারধর শুরু করে।

 চালক আশপাশের লোককে বিষয়টি জানালে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে এসআই বেলালকে গণপিটুনি দেয়। গণরোষের হাত থেকে বাঁচতে এসআই বেলাল চালক সাবেরকে নিয়ে পাশের বেকারি অ্যান্ড সুইটস মিটস-এ ঢুকে সেখানেও চালককে লাঠি দিয়ে বেদম পিটুনি দেয়। এ সময় অ্যাম্বুলেন্সের রোগীর স্বজনদের ডাকচিৎকারে স্থানীয় লোকজন আরও ক্ষিপ্ত হয়ে মহাসড়ক অবরোধ করে এবং বেকারির সার্টার, লাইট ভেঙে চালককে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে টঙ্গী থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চালককে উদ্ধার করেন।

এ বিষয়ে চালক মো. সাবের হোসেন বলেন, রোগীর স্বজনদের অনুরোধে রং সাইড দিয়ে যাচ্ছিলাম। পরে পুলিশ গাড়ি আটকিয়ে আমাকে নামিয়ে মারধর করে। এ ব্যাপারে এসআই বেলাল বলেন, রং সাইড দিয়ে যাওয়ার সময় আসলে রোগী আছে কিনা দেখতে গাড়িটি থামিয়েছিলাম। এ সময় চালক নেমে আমার ওপর চড়াও হলে তাকে একটি থাপ্পড় দেই। পরে সে আমাকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারতে থাকে। এ বিষয়ে টঙ্গী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ফিরোজ তালুকদার বলেন, তর্কবিতর্কের ঘটনা ঘটেছে। কোনো মারামারি হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।

 

up-arrow